Breaking News
Home >> Breaking News >> দিলীপ ঘোষকে মানবতা শেখালেন মমতা, অ্যাম্বুল্যান্সকে রাস্তা করে দিতে মিছিল থামালেন নেত্রী

দিলীপ ঘোষকে মানবতা শেখালেন মমতা, অ্যাম্বুল্যান্সকে রাস্তা করে দিতে মিছিল থামালেন নেত্রী

সমীর রুদ্র, স্টিং নিউজ সার্ভিস: ফের মানবিকতার নিরিখে জিতে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী। পদযাত্রা থামিয়ে জায়গা করে দিলেন অ্যাম্বুল্যান্সকে। মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ফের একবার প্রমাণ করলেন তিনি মানুষের নেত্রী।

উত্তরবঙ্গের পর বৃহস্পতিবার দক্ষিণবঙ্গে ছিল মমতার মিছিল। এনআরসি ও সিএএ–র প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার মধ্যমগ্রাম থেকে বারাসত পদযাত্রায় হাঁটলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উপস্থিত ছিলেন সুজিত বসু, মমতাবালা ঠাকুর এবং অন্যান্য নেতৃত্ববৃন্দ। আর সেই সময়ই তাঁর পদযাত্রার একটা পর্যায়ে একটি অ্যাম্বুল্যান্স আটকে পড়ে রাস্তায়। ঘটনার খবর কানে পৌঁছতেই মমতা নিজে উদ্যোগী হয়ে ওঠেন। প্রত্যেককে জায়গা করে দিতে বলেন। শেষে অ্যাম্বুল্যান্সটি ঠিকঠাক বেরিয়ে গেলে আবার স্বাভাবিকভাবে পদযাত্রা শুরু হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জানুয়ারি বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ একটি অ্যাম্বুলেন্স চালককে বলেছিলেন, “এখান দিয়ে যেতে দেওয়া যাবে না। লোকে রাস্তায় বসে রয়েছে। ডিসটার্ব হয়ে যাবে। ঘুরিয়ে অন্য দিক দিয়ে নিয়ে যান।’’ এই মন্তব্য ঘিরে শোরগোল পড়ে গেলেও দিলীপবাবু জানান, তিনি তার উক্তি নিয়ে একটুও অনুতপ্ত নন।

দিলীপ ঘোষের হুমকিতে অ্যাম্বুল্যান্স ঘুরে যাওয়ার পরই নড়েচড়ে বসে পুলিশ। তদন্তে দেখা যায়, দিলীপ বাবুর দাবিমতো ওই অ্যাম্বুল্যান্সে মোটেই খালি ছিল না, তাতে এক প্রসূতি ছিলেন। তাঁর নাম পাপিয়া খাতুন। ধুবলিয়াতে বাড়ি ওই প্রসূতির। সেদিন কৃষ্ণনগর সদর হাসপাতালে ভরতি করার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল তাঁকে। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের হয় দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে।

তবে বৃহস্পতিবার মমতার পদযাত্রার চিত্র দেখে অনেকেই বলেছেন, রাজনীতি আলাদা হওয়ার পাশাপাশি মানুষ হিসেবেও যে তাঁরা অনেকখানিই আলাদা, তা ‘অ্যাম্বুল্যান্স চিত্রেই’ স্পষ্ট।

এছাড়াও চেক করুন

গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

স্টিং নিউজ সার্ভিস, মালদা: মদ্যপ অবস্থায় স্ত্রীর ওপর শাররীক অত্যাচার স্বামীর,অবশেষে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.