Breaking News
Home >> Breaking News >> হেলমেট পরে বিয়ে করতে গেল বর

হেলমেট পরে বিয়ে করতে গেল বর

স্টিং নিউজ সার্ভিস, শান্তিপুর, নদিয়াঃ সেভ ড্রাইভ সেভ লাইফ এর বার্তা পৌঁছে দিতে মাথায় হেলমেট পড়ে মোটর বাইক চালিয়ে বিয়ে করতে গেলেন বর l আবার বিয়ে সেরে নতুন বউয়ের মাথায় হেলমেট পড়ে নিজের বাইকের পেছনে করে নিয়ে এলেন বাড়িতে l

যদিও নতুন ধুতি-পাঞ্জাবি পড়া মোটর বাইকচালককে দেখে নতুন বর বলে মনে হলেও মাথায় হেলমেট দেখে অন্তত কিছুটা হলেও ঘাবড়ে গিয়েছিলেন পাত্রীর বাড়ির লোকজন l বর ও বউয়ের নাম যথাক্রমে পাপাই ঘোষ ও জয়িতা দাস ঘোষ l দুজনেরই বাড়ি নদিয়ার শান্তিপুরে l পাপাইদের থেকে জয়িতাদের বাড়ির দূরত্ব প্রায় আড়াই কিলোমিটার l দেখাশুনা করে সামাজিক মতেই ঠিক হয়েছিল বিয়ে l বুধবার রাতে ছিল বিয়ের লগ্ন l শান্তিপুরের সুত্রাগড়ের তুলসী মন্দিরের কাছে পাপাইদের বাড়ি l আড়াই কিলোমিটার দূরে কুঠিরপাড়াতে বাড়ি জয়িতার l রাত আটটার কিছুটা পরে পাপাই ও তার বন্ধু-বান্ধবেরা প্রত্যেকে মাথায় হেলমেট পড়ে রওনা দিয়েছিলেন বিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে l বিয়ের নতুন ধুতি -পাঞ্জাবি, জুতো পড়ে মোটর বাইক চালিয়ে রওনা দিয়েছিলেন পাপাই l মাথায় টোপরের বদলে ছিল হেলমেট l অবশ্য টোপর রাখা ছিল ব্যাগে l পাপাই জয়িতাদের বাড়ির কাছে পৌঁছে অবশ্য মোটরবাইক থেকে নেমে মাথা থেকে হেলমেট খুলে পড়ে নিয়েছিলেন বিয়ের টোপর l না, বর এবং বরযাত্রীরা এইভাবে মোটর বাইক চালিয়ে বিয়ে করতে আসবে, এমন ধারণা আদৌ ছিল না পাত্রীর বাড়ির লোকজনের l এমনকি, আগাম তাদের সে কথা জানানোও হয়নি l

পেশায় কাপড়ের ব্যবসায়ী পাপাই ঘোষ জানিয়েছেন, ‘ মোটরবাইক চালিয়ে বিয়ে করতে যাবার বিষয়টা আমরা সারপ্রাইজ দিয়েছি l জয়িতাকে পর্যন্ত আগাম জানানো হয়নি l আসলে সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ সম্পর্কে মানুষের কাছে একটা বার্তা পৌঁছে দেওয়াই ছিল আমাদের মূল উদ্দেশ্য l অনেক মানুষ দেখেছেন l জয়িতাদের বাড়ির লোকজনকেও জানিয়েছি, অবশ্যই মাথায় হেলমেট পড়ে মোটরবাইক চালাতে হবে l তবেই এড়ানো যাবে দুর্ঘটনা l’ আসলে পাপাই ও তার বন্ধুরা কয়েকজন মিলে দীর্ঘদিন ধরেই সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফের প্রচার করে আসছেন l তারা মূলত বাহিক বাইনী নামেই পরিচিত এলাকায় l রয়েছে তাদের ‘ক্রিয়েটিভ বয়েজ’ নামে একটি ক্লাবও l

পাপাই জানিয়েছেন, ‘ এর আগে আমরা নিজেরা তো বটেই, শান্তিপুর থানার পুলিশের সঙ্গেও সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফের প্রচার কর্মসূচী পালন করেছিলাম l তাই বিয়ের সময়ও প্রচারের ভাবনা থেকেই বিষয়টি মাথায় আসে l’ নতুন বউ জয়িতা অবশ্য জানিয়েছেন, ‘ বিষয়টা যথেষ্টই অভিনব l আমার খুব ভালো লেগেছে l আমিও টুপুরের বদলে হেলমেট পড়ে শ্বশুর বাড়িতে এসেছি l দুর্ঘটনা এড়াতে আমিও মনে করি, মাথায় হেলমেট পরা উচিত সবারই l’

এছাড়াও চেক করুন

বাঁশবেড়িয়ার ত্রিবেনিতে মানুষের সুবিধার জন্য তৈরি হচ্ছে যাত্রী প্রতীক্ষালয়

স্টিং নিউজ সার্ভিস, হুগলি: বাঁশবেড়িয়ার ত্রিবেনিতে মানুষের সুবিধার জন্য তৈরি হচ্ছে যাত্রী প্রতীক্ষালয়।সাধারণ মানুষের দীর্ঘদিনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.