Breaking News
Home >> Breaking News >> উন্নাওয়ের ‘বেটি’ বুঝিয়ে গেল মেয়েদের জীবন কতটা কষ্টকর

উন্নাওয়ের ‘বেটি’ বুঝিয়ে গেল মেয়েদের জীবন কতটা কষ্টকর

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, হাওড়াঃ শত কষ্ট শেষে শরীর থেকে প্রাণ ছেড়ে যায়। রক্ত-মাংসের দেহ পড়ে থাকে অন্ত্যেষ্টির অপেক্ষায়। হয়তো-বা এক একটা মৃত্যু শক্ত মাটিতে খোদাই করে দেয় নির্যাতিতা এক মেয়ের জীবনের শত সহস্র জ্বালা।

মেয়েদের শরীর দেখলেই শরীরের পোকা কিলবিলিয়ে ওঠে। খাবার জন্য অপেক্ষা করে না। তারপর খাওয়া মিটতেই পাতটাকে ফেলে দেয় আগুনের সামনে। নাহলে আবারও খাবার ইচ্ছে নিয়ে রেখে দেয় এঁটো থালা করে। প্রতিটি মুহূর্তে কষ্ট দেওয়াই যেন পঞ্জিকার পাতায় লেখা ভবিষ্যৎ বাণীর মতো সত্য হয়ে ওঠে।

চোখের জল ভেজাতে পারে না দুস্কৃতিদের। রক্ত-মাংসের দেহ যে এক প্লেট রোস্ট কিংবা গনগনে আগুনে বানানো শিক কাবাব। নির্ভয়া, পশু চিকিৎসক, উন্নাওয়ের মেয়ে এক একটা নির্যাতিতার নাম শুধু বদলায়। অত্যাচার চালানোর পর মৃত্যু’র তালিকায় নাম ক্রমশই বেড়ে চলেছে।

চোখের জলে নির্যাতিতার দেহ সৎকার করে পরিবার। প্রশাসন প্রশ্ন খোঁজে সত্যিই কি মেয়েটির সঙ্গে অত্যাচার চালানো হয়েছে। কারণ টা ধর্ষণ কে মারণাস্ত্র করে কিছু মহিলা নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করেছে। প্রশাসনের কাজ সবদিক খতিয়ে দেখা। তবে কি জানেন প্রশাসনের কাজটা যদি দ্রুত হয় মানুষের প্রশ্ন করার ইচ্ছে কমবে। আইনকে হাতে তুলে নেওয়া বা এনকাউন্টার কে সাপোর্ট করা থেকে বিরত থাকবে।

নির্যাতিতার পরিবারের হাতে দুই কি পাঁচ অথবা দশ-বিশ লাখ দিয়ে দেওয়া হয়। বাকিটা সাজানো ঘটনায় পরিণত! এমন টাই তো ঘটছে। চায়ের দোকান, বাসে-ট্রেনে কান পাতলেই এমন কথা শুনতে পাবেন। পরিবারের হাতে টাকার থলি না দিয়ে বেটিদের জীবন রক্ষার বার্তা দিন। দেখবেন মানুষ দু’হাত তুলে আশীর্বাদ দিচ্ছে। একটা মেয়ে পরবর্তী সময় দুটো সন্তানের জন্মদায়িনী ‘মা’।

উন্নাওয়ের মেয়েটিকে নির্যাতনের সবটুকু দিয়ে ওরা তিলতিল করে মেরেছে। দেশের মানুষ এনকাউন্টারের স্বাদ পেয়েছে। তবুও বিচারের আশায় প্রশাসনের দরজায় খটখটাচ্ছে। প্রত্যেকে জানে আইনের ফাঁকফোকর বন্ধ হলেই দ্রুত সাজা মিলবে। আর প্রয়োজন রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের সদিচ্ছার। তাহলেই রক্ষা পাবে বেটিদের জীবন।

এছাড়াও চেক করুন

মদ্যপ অবস্থায় ড্রাইভিং না করার পরামর্শ দেন পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও

নরেশ ভকত, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, বাঁকুড়া: কমবয়সী যুবকদের মদ্যপ অবস্থায় মোটর বাইক চালানোর প্রবনতা বেড়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.