Breaking News
Home >> Breaking News >> গীতার শ্লোকের ধ্বনিতে মুখরিত হল আন্তর্জাতিক মায়াপুর ইসকন মন্দির

গীতার শ্লোকের ধ্বনিতে মুখরিত হল আন্তর্জাতিক মায়াপুর ইসকন মন্দির

স্টিং নিউজ সার্ভিস, মায়াপুরঃ রবিবার সকাল থেকে বেশ কয়েক হাজার গীতা বিশেষজ্ঞ ও কৃষ্ণ ভক্ত মানুষ একযোগে গীতার শ্লোকের ধন্ন্যিতে, মুখরিত হয়ে উঠল আন্তর্জাতিক মায়াপুর ইসকন মন্দির। রবিবার ছিল পাঁচদিন ব্যাপী গীতা জয়ন্তী উৎসবের শেষ দিন। উৎসবের শেষদিন কে ঘিরে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশের মানুষ ছাড়াও বহু বিদেশি ভক্ত এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসে।

উৎসবের শেষদিনে প্রায় প্রায় হাজার গীতা প্রেমী ভক্ত ও গীতা বিশেষজ্ঞ একযোগে গীতা পাঠ করেন। এছাড়াও বিশ্ব শান্তির উদ্দেশ্যে মহাযোজ্ঞ ও হরিনাম সংকীর্তন সহযোগে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে শেষ হয়,পাঁচদিন ধরে চলা বর্ণময় গীতা জয়ন্তী উৎসব। ইসকনের প্রধান কেন্দ্র আন্তর্জাতিক মায়াপুর চন্দ্রোদয় মন্দিরে পাঁচদিন ব্যাপী গীতা জয়ন্তী উৎসবে যোগ দিতে যেমন এসেছিলেন বহু বিদেশি ভক্ত তেমনই ছিলেন ভারতের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে আসা বিশিষ্ঠ গীতা বিশেষজ্ঞরা।

এর পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন অসংখ্য স্থানীয় কৃষ্ণ ভক্ত মানুষজন। বুধবার ৪ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়েছিল, পাঁচদিন ব্যাপী গীতা জয়ন্তী উৎসব। ৮ ডিসেম্বর রবিবার ছিল ওই উৎসবের শেষ দিন। শেষদিন কে সর্বাঙ্গীন সুন্দর ও বর্ণময় করে তুলতে কোনরকম খামতি রাখেনি মায়াপুর ইসকন মন্দির কতৃপক্ষ। আজ থেকে প্রায় পাঁচ হাজার বছর আগে কুরুক্ষেত্রের সমরাঙ্গনে অমিত শক্তিশালী ধনুর্বর অর্জুন কে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণ জ্ঞান দান করেছিলেন এই শুভ তিথিতে। সেই ঐতিহ্য কে স্মরনে রাখতে প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও মহাসমারোহে পালন করা হল গীতা জয়ন্তী উৎসব। গীতা জয়ন্তী কে কেন্দ্র করে এই পাঁচদিন মায়াপুরের ইসকন মন্দিরে গীতা পাঠ থেকে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

পাঁচদিন ব্যাপী গীতা জয়ন্তী উৎসবে দেশের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে আসা গীতা বিশেষজ্ঞরা এদিন সমবেতভাবে গীতা পাঠ করেন। মায়াপুর ইসকন মন্দিরের জনসংযোগ দপ্তরের আধিকারিক রসিক গৌরাঙ্গ দাস বলেন, মায়াপুর ইসকনের প্রধান কেন্দ্র। শ্রীধাম মায়াপুর এখন বিশ্ববাসীর কাছে পারমার্থিক জ্ঞান আরোহণের অন্যতম পীঠস্থান।

ভক্তিবেদান্ত গীতা একাডেমি ভারতবর্ষে বিশেষত বাংলা, হিন্দি এবং ইংরেজি ভাষায় গীতা স্টাডি কোর্সের মাধ্যমে শ্রীল প্রভূপাদের গীতা ও ভাগবত পড়ার সুযোগ করে দিয়েছে। গীতার জ্ঞানে বিশ্ববাসীর হৃদয়কে উদ্ভাসিত ও গীতা অধ্যয়নরত ছাত্র – ছাত্রীদের মনোবল বৃদ্ধির লক্ষ্যে এই উৎসবের আয়োজন বলে জানান , রসিক গৌরাঙ্গ দাস। ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রদেশের প্রায় দুহাজার গীতা প্রতিনিধি পাঁচদিন ধরে চলা এই উৎসবে যোগ দিয়েছিলেন।

এছাড়াও চেক করুন

গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

স্টিং নিউজ সার্ভিস, মালদা: মদ্যপ অবস্থায় স্ত্রীর ওপর শাররীক অত্যাচার স্বামীর,অবশেষে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.