Breaking News
Home >> Breaking News >> নদিয়ায় সন্তানকে হত্যার চেষ্টা করে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী মা

নদিয়ায় সন্তানকে হত্যার চেষ্টা করে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী মা

স্টিং নিউজ সার্ভিস, চাকদহ, নদিয়াঃ দু’বছরের ছেলের কান্না থামাতে না পেরে ছেলের গলা টিপে খুনের চেষ্টা মায়ের l এরপর ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন মা l ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার মদনপুরে l মঙ্গলবার রাতে মদনপুর স্টেশনের কাছে থেকে পুলিশ মায়ের মৃতদেহ উদ্ধার করে l পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম বন্দনা রায় ভগৎ l বয়স চৌত্রিশ বছর l চাকদহ থানার মদনপুরের পশ্চিম শান্তিনগর এলাকায় বাপের বাড়ি বন্দনা রায় ভগতের l বন্দনাদেবীর শ্বশুর বাড়ি উত্তর চব্বিশ পরগনার ইছাপুরে l তার স্বামী গঙ্গা ভগৎ একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করেন l তাদের একটি মেয়ে ও একটি ছেলে সন্তান রয়েছে l

মেয়ে সন্তানের বয়স তিন বছর আর ছেলের বয়স দুই বছর l দিন পাঁচেক আগে নিজের মেয়ে ও ছেলেকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে বাপের বাড়ি এসেছিলেন বন্দনাদেবী l মেয়েকে শ্বশুর বাড়ি থেকে নিজের বাড়িতে নিয়ে এসেছিলেন বন্দনা দেবীর মা l দুদিন আগে অবশ্য শ্বশুরবাড়িতে এসেছিলেন বন্দনা দেবীর স্বামী গঙ্গা ভগৎ l তিনি তার মেয়েকে নিয়ে বাড়ি চলে গিয়েছিলেন l শ্বশুরবাড়িতে রেখে গিয়েছিলেন স্ত্রী এবং দুই বছরের ছেলেকে l বাপের বাড়িতে দুই বছরের ছেলেকে শ্বাসরোধ করে খুন করার চেষ্টা চালানোর পর সবার অলক্ষ্যে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন বন্দনা দেবী।

ওই ঘটনায় মদনপুরের পশ্চিম শান্তিনগরের বাসিন্দাদের মধ্যে রীতিমতো চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে l কেন বন্দনা দেবী নিজের সন্তানকে খুন করার চেষ্টা করে আত্মহত্যা করেছেন, তা নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন দেখা দিয়েছে ওই এলাকার লোকজনের মনে l যদিও মৃত বন্দনা দেবীর বাবা দিলীপ রায় জানিয়েছেন, ‘আমার মেয়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছিল l বিগত প্রায় দুই বছর ধরে আমার মেয়ের চিকিৎসা চলছিল l আমার মেয়ে অল্পতেই রেগে যেত l মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমার নাতি যখন কান্নাকাটি করছিল, তখন আমার মেয়ে নাতিকে চুপ করানোর চেষ্টা করে l নাতি চুপ না করায় তাকে মারধর করে আমার মেয়ে l তাতে আমার নাতি আরও জোরে কান্নাকাটি শুরু করে l এরপর আমার নাতির গলা টিপে ধরে তাকে শ্বাসরোধ করে খুন করার চেষ্টা করে আমার মেয়ে l আর তাতে আমার নাতি অচৈতন্য হয়ে পড়ে l

আমরা সবাই যখন নাতিকে জ্ঞান ফেরাতে ব্যস্ত হয়ে পড়ি, তখন সবার অলক্ষ্যে আমার মেয়ে কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল l আমরা সেই সময় খেয়ালই করতে পারিনি l পরে জানতে পারি, আমার মেয়ে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে l’ যদিও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বন্দনা দেবীর দু’বছরের অসুস্থ বিজু ভগতকে তার বাড়ির লোকজন ও প্রতিবেশীরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। এরপর তাকে কল্যাণী জহরলাল নেহরু মেমোরিয়াল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় ল

বর্তমানে কল্যাণী জহরলাল নেহরু মেমোরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। রেল পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে মদনপুর রেল স্টেশনের প্লাটফর্মের কাছে থেকে এক মহিলার মৃতদেহ উদ্ধার করে রেল পুলিশ l পরে মৃতদেহটি বন্দনা দেবীর বলে শনাক্ত করেন তার বাড়ির লোকজন l পুলিশ জানিয়েছে, চলন্ত ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বন্দনা দেবী l

এছাড়াও চেক করুন

আগামী পুরসভা ভোটে আসন সংরক্ষণ নিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি দিলীপ যাদব

স্টিং নিউজ সার্ভিস, হুগলি: আগামী পুরসভা ভোটে দেখা যাচ্ছে যে সংরক্ষণের আওতায় পড়ে গিয়ে অনেক …

Leave a Reply

Your email address will not be published.