Breaking News
Home >> Breaking News >> ইভটিজার রুখতে মিশন স্বয়ংসিদ্ধায় এক লক্ষ স্কুল ছাত্রী নিচ্ছে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ

ইভটিজার রুখতে মিশন স্বয়ংসিদ্ধায় এক লক্ষ স্কুল ছাত্রী নিচ্ছে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ

স্টিং নিউজ সার্ভিস, বীরভূমঃ স্বয়ংসিদ্ধা অর্থাৎ যে সব কাজেই সিদ্ধ। সে দুষ্কৃতী দমনেই হোক বা সাংসারিক দায়বদ্ধতায়। ১৯৭৫ সালে নির্মিত বাংলা চলচ্চিত্র স্বয়ংসিদ্ধা ছবিতেও এক নারী চরিত্রকে এভাবেই তুলে ধরা হয়েছিল।

বর্তমান সময়ে মহিলাদের ওপর ঘটে চলা একেরপর এক নারকীয় ঘটনায় সেই রিল লাইফের স্বয়ংসিদ্ধাকে রিয়েল লাইফে গড়ে তুলতে উদ্যোগী হয়েছেন বীরভূম জেলার ক্যারাটে প্রশিক্ষক কৌশভ সান্যাল। দীর্ঘ ছাব্বিশ বছর ধরে ক্যারাটে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন তিনি। অর্জন করেছেন আন্তর্জাতিক মানের সিক্সথ ডান ব্ল্যাক বেল্ট।

কিন্তু এরপর অনেকের মতো তাঁর ডিগ্রী ব্যাবসার কাজে না লাগিয়ে এক অভিনব মিশন নিয়ে কাজ শুরু করেছেন তিনি। মহিলাদের ওপর বিভিন্ন ক্ষেত্রে অত্যাচার বেড়ে যাওয়ায় সব স্তরের মেয়েদের আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দেওয়ার ভাবনা মাথায় আসে তাঁর। যদিও অভিভাবকদের সচেতনতার অভাব তাঁর যাবতীয় প্রচেষ্টায় জল ঢেলে দেয়।

এরপরেই দিল্লীর বুকে ঘটে যায় এক নারকীয় ঘটনা। নির্ভয়া কান্ডের সেই ঘটনার পরেই মিশন স্বয়ংসিদ্ধা নামে একটি অভিনব উদ্যোগ নিয়ে স্কুল কলেজের মেয়েদের বিনামূল্যে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দিতে এগিয়ে আসেন তিনি। কৌশভ বাবু বলেন বেশীরভাগ অভিভাবক তাঁর মেয়েকে ক্যারাটে প্রশিক্ষণ দিতে রাজী হননি। তাই আমি স্কুল, কলেজগুলো বেছে নিয়েছিলাম। যেখানে গিয়ে তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য শিক্ষকদের রাজী করাই। এখানেও বাধা আসে অনেক জায়গায়। কিন্তু বেশীরভাগ স্কুল থেকেই আশানুরূপ ফল পাওয়া যায়। অনেক শিক্ষক শিক্ষিকা এগিয়ে আসেন এবং নিজেরাও আত্মরক্ষার প্রশিক্ষন নেন। এভাবেই মিশন স্বয়ংসিদ্ধার কাজ এগিয়ে যেতে থাকে। ২০১৫ সাল থেকে মাত্র চার বছরের মধ্যে এই প্রশিক্ষক একাই চল্লিশ হাজার ছাত্রীকে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। বীরভূম জেলার প্রায় চল্লিশটা স্কুলে দেওয়া হয়েছে এই প্রশিক্ষণ।

এছাড়াও হুগলি জেলার প্রায় পঁচিশটা স্কুল ও বর্ধমান জেলা মিলিয়ে চল্লিশ হাজার স্কুল ও কলেজের ছাত্রীদের ক্যারাটে প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদের তৈরি করেছেন স্বয়ংসিদ্ধা রূপে। গ্রাম বাংলার এই স্বয়ংসিদ্ধারা যে সত্যিই অসুরনাশীনী দেবী দুর্গার প্রতিমূর্তি হয়ে উঠতে পেরেছে তার প্রমাণও পাওয়া গেছে হাতেনাতে। এই মিশনের অন্তর্গত বীরভূম জেলার শান্তিনিকেতন থানার গোয়ালপাড়ার বাসিন্দা পারমিতা ভট্টাচার্য তার বান্ধবীর ওপর ঘটে চলা নির্যাতনের অবসান ঘটাতে এক ইভটিজারকে রাস্তায় ফেলে উত্তম মধ্যম দেয়। একইভাবে অন্যান্য জায়গায় এই প্রশিক্ষকের কাছে ট্রেনিং নিয়ে বহু ছাত্রী অপরাধের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। তাদের এই মানসিকতা জানান দিয়েছে বাংলার মাটিতে জাগছে স্বয়ংসিদ্ধারা। তবে এখানেই থেমে থাকছেন না এই প্রশিক্ষক। তাঁর লক্ষ এক লাখ স্কুল ও কলেজের ছাত্রীকে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দেওয়া। এই সংখ্যা সম্পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত মিশন স্বয়ংসিদ্ধার কাজ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাবে বলে জানান তিনি। একইভাবে আর একটি নতুন ভাবনা নিয়েও কাজ শুরু করছেন এই প্রশিক্ষক। এবার গৃহবধূদের জন্যও বিনামূল্যে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করেছেন। যার নাম দিয়েছেন মিশন অনন্যা। ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পও সাড়া ফেলেছে এলাকায়। বহু গৃহবধূ আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ নিতে এগিয়ে এসেছেন।

তবে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণের পাশাপাশি সবাইকে এখানে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় নারী শক্তির কথা। অন্তরের সিংহবাহিনীর সুপ্ত শক্তিকে জাগ্রত করতে তাদের কানে দেওয়া হয় একটাই মন্ত্র “আত্মরক্ষা কর কুমারী মেয়ের মতো, আর প্রয়োজনে আক্রমণ কর হিংস্র বাঘের মতো”। এই মন্ত্রে দিক্ষীত হয়েই আসুরিক শক্তির নিধনে এবার জাগছে বাংলার স্বয়ংসিদ্ধারা।

এছাড়াও চেক করুন

ফের সেতু উদ্বোধন নিয়ে দেখা দিল তৃনমুল বিজেপি সংঘাত

নরেশ ভকত, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, বাঁকুড়াঃ ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর নবনির্মিত একটি রেলওয়ে ওভার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.