Breaking News
Home >> Breaking News >> চন্দননগর বাগবাজারের পুজোয় উঠে এসেছে পুরোনো কোলকাতা

চন্দননগর বাগবাজারের পুজোয় উঠে এসেছে পুরোনো কোলকাতা

সুমন করাতি, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, হুগলি: হুগলি জেলার চন্দননগর শহরের প্রান কেন্দ্র বড়বাজারে এলে আপনি বুঝতেই পারবেন না যে এটি কোনো মন্ডপ না পুরোনো কলকাতার একটা অংশ। মন্ডপের সামনে একগাদা জামা ঝোলানো সামনে সাইকেল সারানোর দোকান মন্ডপে ভাঙা সাটার লাগানো দোকান ঘরের মাথায় পাঁচ পুরুষ পুরোনো একটা সাইকেল। সামনে এগিয়ে মন্ডপে প্রবেশ করলে সেখানেও একগাদা দোকান, কি নেই সেখানে অমিতাভ মিঠুনের ছবি দেওয়া সেই সেলুন, থেকে আরোও কত কি। কিন্তু এ কেমন থিম! না এটা কোনো পুরোনো পাড়ার দোকান নয়, উদ্যোক্তরা বলছেন “কুর্নিশ ” সেই সব মানুষদের যারা রাত দিন শ্রমের বিনিময়ে বেঁচে থাকেন আর সৃষ্টি করেন অন্য মানুষের বেঁচে থাকার রসদ।

শ্রমজীবী মানুষের নিত্য দিনের বেঁচে থাকার সংগ্রামের মধ্যেই সৃষ্টির আনন্দই বড়বাজারের এবারের পুজো থিম।
মানকুন্ডুর দৈবক পাড়ার এবারের থিম গজাবুড়ুর দেশে, কে গজাবুড়ু কেনই বা সে পুজো মন্ডপে! আসলে এই পাড়ারই কয়েকজন ট্রেকিংএ গিয়েছিলেন পুরুলিয়ায়। অযোদ্ধা পাহাড়ে ট্রেকিং তো অনেকবার হয়েছে এবার অন্য কোনো পাহার চাই তাই নতুন পাহাড় খুঁজতে গিয়ে গজাবুড়ুর র অবিষ্কার। গজাবুড়ু পাহাড় যে জেলায় সেই জেলার সবচেয়ে বড় সংস্কৃতি ছৌনাচ। সেই ছৌনাচের জন্য যে মুখোশ তা কি দিয়ে তৈরী হয়, তার প্রক্রিয়া কত রকমের মুখোশ এই নাচে ব্যবহার হয়, তা পড়ে থাকতে কতটা কষ্ট করতে হয় ছৌ শিল্পীদের তার নিখুঁত বর্ননা ফুটিয়ে তুলেছেন এই বারোয়ারী র কয়েকজন যুবক।

তার সাথে সামঞ্জস্য রেখে মায়ের মুখ ও পরিবর্তন করে ফেলেছেন তারা। চার মন্দির তলায় এবারের থিম স্বপ্ন জুড়ে শান্তি আসুক। মন্ডপের সামনেই এক যুবকের কথা রেকর্ডের মাধ্যমে গল্পের আকারে বলে দেওয়া হচ্ছে।

থিমের যুগে বাঁশ কাঠ কাগজের সাথে বেত, পাটকাঠি দিয়ে তৈরী মন্ডপে নতুন কি! না তার জন্য ওই রেকর্ড শোনা খুব দরকারী। কারন ওখানে গদাই এর গল্প বলা হচ্ছে। গদাই পাড়ার খবরের কাগজ বিক্রেতা। পাড়ার পুজোর থিম মেকার টাকা নিয়ে ডুবিয়েছেন উদ্যোক্তাদের। পুজোর মুখে সবার তাই মাথায় হাত। সেই সময়ই গদাইকে সাথে নিয়ে এক উদ্যোক্তা ক্লাবে হাজির। তার বক্তব্য এবার তিম তৈরী করবে গদাই। খবরের কাগজ বাঁশ কাঠ নিয়ে দিন রাত এক করে তৈরী হল মন্ডপ। কত মানুষ এলেন পুজো দেখতে সবাই প্রসংশা করলেন থিমের।

পুজো শেষে একগাদা পুরষ্কার ও জিতল ক্লাব। কিন্তু সেরা থিমের পুরষ্কার প্রাপক থিম মেকারের ডাক পড়তেই বাঁধল সমস্যা। কারন পুরষ্কার এর চেকে কার নাম লেখা হবে, সবাই বলল গদাই, কিন্তু গদাই কি,, তা তো কেউ জানেনা।

আসলে গদাই এর মত এরকম নাম গোত্রহীম শিল্পীদের প্রতিভার যে মূল্য এখনও ব্রাত্য তার উদাহরণ ই এই পুজোর থিম।
গোন্দলপাড়া সাতঘাটে এবারের থিম রূপসীবাংলা। ম্ডপের সামনে বিশাল গরুর গাড়ী একই সাথে ভিতরে খর বেত সহ বাংলার শিল্পকর্মের অপূর্ব রূপ তুলে ধরা হয়েছে মন্ডপের আনাচে কানাচে।

আসছি আসছি করে জগদ্ধাত্রী বন্দনা র প্রায় মাঝামাঝি ফরাসডাঙার মানুষ, তার ওপর রবিবার ছুটির দিন ফলে লাখ লাখ মানুষের ভিড় যে হুগলীর তিন শহরে ছাপিয়ে উঠবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।

এছাড়াও চেক করুন

কেক কেটে শিশু দিবস পালন করল মালদা রেল চাইল্ড লাইনের সদস্যরা

বিশ্বজিৎ মন্ডল, স্টিং নিউজ, মালদাঃ পথশিশুদের নিয়ে কেক কেটে শিশু দিবস পালন করল মালদা রেল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.