Breaking News
Home >> Breaking News >> গ্রামীণ হাওড়ায় লক্ষ্মী আরাধানায় সবুজ ও পরিবেশ-বান্ধব প্যান্ডেল

গ্রামীণ হাওড়ায় লক্ষ্মী আরাধানায় সবুজ ও পরিবেশ-বান্ধব প্যান্ডেল

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়াঃ শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হতেই বাঙালির ঘরে এবার কোজাগরী লক্ষ্মীপূজা। আনন্দ মুখর উৎসবের রেশ জিইয়ে রেখে দেবী লক্ষ্মীর আরাধনায় মেতে উঠেছে হাওড়া’র খালনা, জোকা এবং রঞ্জপুর। পরিবেশ-বান্ধব প্যান্ডেল ও সৌন্দর্যায়নের উপর জোর দিয়েছে পুজো উদ্যোক্তারা।

হাওড়া জেলার জয়পুর থানার খালনা গ্রাম। গ্রামীণ হাওড়ার এই গ্রাম আপাত দিক দিয়ে অন্যান্য গ্রামের সঙ্গে ফারাক খুঁজে না পেলেও লক্ষী পুজোর সময় এই গ্রাম ‘লক্ষীর’ গ্রামে পরিণত হয়। গ্রামজুড়ে ৮০টির মতো ছোট-বড় পুজো অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পুজো ক’দিন জেলার হাজার-হাজার দর্শনার্থীর ভিড়ে সরগরম। রবীন্দ্রতীর্থ বানিয়েছে খালনা আনন্দময়ী তরুণ সঙ্ঘ। খালনা মিতালি সঙ্ঘ হোগলা পাতা দিয়ে বানিয়েছে পরিবেশ-বান্ধব সুবিশাল মণ্ডপ। খুদিরায়তলা কোহিনুর ক্লাব পরিবেশ বাঁচাতে এগিয়ে এসেছে। এক হাজার বৃক্ষ বিতরণ করছে। প্যান্ডেলেও সবুজের ছোঁয়া। গাছ কাটলে কিভাবে জমাট বরফ গলে যাচ্ছে মন্ডপে তুলে ধরা হয়েছে। সেন রাজবংশের রাজা বল্লালসেনের নামাংকৃত বৃহাদাকার বল্লালঢিপি বানিয়ে ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সৃষ্টি করেছে খালনা আমরা সকল সঙ্ঘ। উদবোধনে হাওড়ার জেলাশাসক মুক্তা আর্য। একের পর এক শতাব্দীর দোরগোড়ায় ও শতাব্দী প্রাচীণ পুজোয় থিম থেকে সাবেকিয়ানা ফুটে উঠেছে।

সাবগাছতলা মোড় থেকে খালনা ব্রিজ অবধি প্রায় সাড়ে তিন কিমি এলাকা দুপুর গড়াতেই দর্শনার্থীর ভিড় বাড়তে থেকেছে। সন্ধ্যা ঢললেই হেঁটে চলাও দায় হয়ে যাবে। গ্রামীণ পুলিশের বড় অংশ দায়িত্ব থাকছে। এছাড়া আমতা ২নং পঞ্চায়েত সমিতি পুজো ক’দিন খালনা এলাকায় আনন্দের বার্তা তুলে ধরেছে।

এলাকার যুবা অমিত, রাজেশ, শ্রাবণী, রিতপ্রিয়া, শৈলেশ, অর্ণব প্রত্যেকের কথায়, খালনা গ্রামের লক্ষ্মী পুজো আমাদের প্রাণের পুজো। দুর্গা পুজো আনন্দ কতটা হয় কিন্তু দ্বিগুণ আনন্দ হয় লক্ষ্মী পুজোয়। এই গ্রামের প্রায় প্রতি ঘরের ছেলেরা রাজ্যের বাইরে সোনার কাজে যুক্ত। এমনকি বিদেশেও রয়েছে। এই সময় ফিরে আসেন। একত্রে সকলে পুজোয় মেতে ওঠা। গোটা গ্রাম সেজে ওঠে আলোকসজ্জায়। বিভিন্ন থিমের আড়ালে মানুষের নজরে দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এক একটি পুজোর বাজেট ছাপিয়েছে কয়েক লাখের হিসেব।

খালনার পাশাপাশি লক্ষ্মীপুজোর জনপ্রিয়তায় এগিয়ে বাগনানের জোকাও। থিমের দাপটে কোন অংশে খালনার কম নয়। দীর্ঘ পঁচিশ বছর ধরে এই গ্রামের মানুষ লক্ষ্মীর আরাধনা করে আসছেন। হাওড়া জেলার শেষ প্রান্ত পেঁড়ো-জয়নগর থেকে দু কিমি দূরে রঞ্জপুরে। এক কিমি এলাকাজুড়ে একাধিক লক্ষ্মী পুজোর মণ্ডপ নির্মাণ হয়। সাধারণ মানুষের মধ্যে উদ্দিপনা চোখে পড়বার মতো।

এছাড়াও চেক করুন

কেক কেটে শিশু দিবস পালন করল মালদা রেল চাইল্ড লাইনের সদস্যরা

বিশ্বজিৎ মন্ডল, স্টিং নিউজ, মালদাঃ পথশিশুদের নিয়ে কেক কেটে শিশু দিবস পালন করল মালদা রেল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.