Breaking News
Home >> Breaking News >> পুজোর উৎসব ছেড়ে মুসলিম বোনকে রক্ত দিয়ে জীবন দান করলো হিন্দু ভাই

পুজোর উৎসব ছেড়ে মুসলিম বোনকে রক্ত দিয়ে জীবন দান করলো হিন্দু ভাই

নবেন্দু ভট্টাচার্য, নদিয়াঃ ষষ্ঠীর সকালে সবায় যখন শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় ব্যস্ত ঠিক সেই সময় শুক্রবার সকাল সাতটায় ফোন আসে কালীগঞ্জের ছোট কুলবেড়িয়া গ্রামের ওসমান গনি কাছে। তবে শারদীয়ার শুভেচ্ছা বিনিময় নায়, ফোন আসে রক্তের প্রয়োজনের। কৃষ্ণনগর হাসপাতাল থেকে পলাশীর এক মুমূর্ষ রোগীর রক্তের জন্য আসে অনুরোধ। কিডনির সমস্যায় জর্জরিত ৪৫ বছরের সানিয়া বিবির জন্য প্রয়োজন বি পজেটিভ রক্তের। তড়িঘড়ি রক্তের খোঁজে নেমে পড়েন ওসমান গনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় রক্তের ফেরিওয়ালা নামে একটি গ্রুপ চালান এই যুবক।

সেখানে খবরটি ছড়িয়ে পড়তেই রক্ত দিতে রাজি হয়ে যান কৃষ্ণনগরের শুভঙ্কর নামে এক যুবক। তাই শুক্রবার ষষ্ঠীর সকালে কৃষ্ণনগর হাসপাতাল দেখল এক অনবদ্য সম্প্রীতির ছবি। পুজোর আনন্দ বাদ দিয়ে মুসলিম মুমূর্ষু রোগীকে রক্ত দিয়ে প্রাণ বাঁচালেন এক হিন্দু যুবক। শারদীয় উৎসবের মাঝে তাই সম্প্রীতির এই মিলন উৎসব আজ ধর্মীয় ভেদাভেদের বেড়া ভেঙে মনুষ্যত্বের এক অসাধারণ বার্তা দিল এই যুবক।

কৃষ্ণনগর হাসপাতালে রক্ত দেবার পর শুভঙ্কর বলেন, ষষ্ঠীর আনন্দ তো অনেক পাবো। কিন্তু একটা মানুষের জীবন হারিয়ে গেলে ফিরে পাবে না। তাই শত কাজ ফেলে রক্ত দিতে ছুটে যায় শক্তিনগর হাসপাতালে। জীবনে প্রথমবার কাউকে রক্ত দিয়ে মনেপ্রাণে খুশি শুভঙ্কর। রোগীর পরিবারের লোকজন বেজায় খুশি হন এবং স্বপ্নের ফেরিওয়ালা গ্রুপকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানান।

স্বপ্নের ফেরিওয়ালা নামে একটি সোশ্যাল মিডিয়ায় গ্রুপের মাধ্যমে শুরু হয় পথ চলা তারপর ধীরে ধীরে স্বপ্নের ফেরিওয়ালা নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা খুলে ফেলে কয়েকজন যুবক। আর তারা পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন সময় মানুষকে রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচাচ্ছে। তাদের মূল উদ্দেশ্যই হলো মানুষের রক্ত কে চেনা ধর্মকে নয়। এই বার্তা নিয়েই তারা চলে।
এই গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আকিব জাবেদ বলেন, আমরা জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সর্বদাই মানুষকে ভালোবেসে মানুষের জন্য কাজ করে যায়। আর এর পুরো কৃতিত্বই আমাদের এই সাহায্যের ফেরিওয়ালা ও এমার্জেন্সি ব্লাড সার্ভিস গ্রুপের।

এছাড়াও চেক করুন

বাঁকুড়ায় শিক্ষ‌কের বা‌ড়ি‌তে চু‌রি

নরেশ ভকত, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, বাঁকুড়াঃ বাঁকুড়া শহরের জুনবেদিয়া বাইপাসের কাছাকাছি পলাশতলা এলাকায় শিক্ষক বৈদ্যনাথ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.