Breaking News
Home >> Breaking News >> কোলাঘাটের রাখী’র মৃত্যু সমাজের সতীত্ব ছিড়েছে!

কোলাঘাটের রাখী’র মৃত্যু সমাজের সতীত্ব ছিড়েছে!

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়াঃ রাখী মারা গেছে। হ্যাঁ আরও একটা সহজ সরল মেয়ের সতীত্ব ছিড়েখুঁড়ে নিয়ে মৃত্যু’র পথ বেছে নিতে বাধ্য করেছে ওই পিশাচের দল।

চারজন অভিযুক্তদের মধ্যে একজন কিশোর। কিন্তু যে ঘৃণ্য ও বর্বরোচিত ঘটনা ঘটিয়েছে তাতে ওই কিশোরকে প্রাপ্ত বয়স্ক ভেবে আদালতে মামলা চলুক। আর সাজা হোক চরম। ঠিক যেভাবে নির্মম অত্যাচারের শিকার হতে হয় ছাত্রীটিকে। একের পর এক পিশাচ গণধর্ষণ করে কেড়ে নেয় সম্ভ্রম।

সমস্তটা ঘটেছে শুভম(প্রেমিকের) উপস্তিতিতে। চরম লজ্জায়, ঘৃণায় নিজেকে শেষ করে দিতে বাধ্য করেছে কিশোরী। বিষ খাবার পরেও দিন আনা দিন খাওয়া পরিবার চেয়েছিল কিশোরী কে বাঁচাতে। টানা ছ’দিন চলে এ হাসপাতাল ও হাসপাতালে যমে-মানুষে লড়াই। শেষ পর্যন্ত হার মানতে হলো রাখীকে। প্রেমিকের হাত ধরে সারাজীবন এগিয়ে চলার রাস্তা শেষ করে দিল সেই প্রেমিক বর!

শুভমের সঙ্গে সম্পর্কে আবদ্ধ ছিল রাখী। মেলামেশা, গল্প, রূপনারায়ণের পাড়ে বসে সুর খুঁজে বেড়াত দশম শ্রেণির মেয়েটি।সপ্তাহান্তে সন্ধ্যায় প্রেমিকের ডাকে বেরিয়েছিল। তার আগেই সমস্ত চিত্রনাট্য বানানো ছিল! শুভমের সঙ্গে কিছুটা পথ যেতেই হামলা করে চারজন। শুরু হয় মেয়েটির উপর চরম নির্যাতন। ছিড়েখুঁড়ে শেষ করে দেওয়া হয় একটা মেয়ের সবথেকে মূল্যবান সম্পদ।

এবার বেশ কয়েকবছর আইনি লড়াই চালাতে হবে পরিবার কে। টাকার লোভে কোনও উকিল অভিযুক্তদের বাঁচাতে মেয়েটির দোষ খুঁজে বেড়াবে। টাকা দিয়ে গণধর্ষণকে ধর্ষণ বলে চালানোর চেষ্টাও চলবে। তবুও সত্যের জয় হবে-ই। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হবে এটুকু নিশ্চিত। তবুও বলবো পকসো আইনে ওই পিশাচদের একমাত্র সাজা দেওয়া হোক ফাঁসি।

তবেই হয়তো শান্তি পাবে একটা কিশোরী প্রাণচঞ্চল মেয়ের আত্মা। একটি ভালোবাসার শেষ উপাখ্যান। এবং মনুষ্যত্ব হারানো সমাজের সতীত্ব বিসর্জনের শেষে অসুর বধ।

এছাড়াও চেক করুন

দিনহাটায় খোঁজ মিলল বেআইনি বোমা কারখানার, গ্রেপ্তার ১

মনিরুল হক, স্টিং নিউজ, কোচবিহারঃ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বোমা তৈরির সরঞ্জাম সহ এক ব্যক্তিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.