Breaking News
Home >> Breaking News >> সংসার চালাতে নৌকা চালানো পৌঢ়া’র পাশে দাঁড়াল পঞ্চায়েত সমিতি

সংসার চালাতে নৌকা চালানো পৌঢ়া’র পাশে দাঁড়াল পঞ্চায়েত সমিতি

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়াঃ তিন ছেলে দেখে না। সাতষট্টি বছর বয়সি স্বামী’র পা ভেঙেছে। প্ল্যাস্টার করার টাকা নেই। টানাটানির সংসার চালাতে দেড় দশক নৌকার হাল ধরেছে পৌঢ়া অন্ন দলুই। এ খবর বুধবার প্রথম প্রকাশিত হয়। খবর প্রকাশিত হতেই আমতা ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল পৌঢ়া অন্ন দলুই এর সঙ্গে দেখা করেন। ওঁনার স্বামীর ভাঙা পায়ের চিকিৎসার খরচ তুলে দেন।

বুধবার বিকালে জয়পুর থানার খড়িগেড়িয়া গ্রামের মনসাতলা ঘাটে পৌঁছে যান পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল। সেই সময় নৌকার হাল হাতে যাত্রী পারাপার করছেন মাঝি অন্ন দলুই। প্রশাসনের গাড়ি দেখে গ্রাম্য এলাকার মানুষজন পৌঁছে যায়। নদীর পাড়ে অন্ন কে হাঁকডাক শুরু করে দেয়। দাঁড় টেনে এপারে এসে মাথায় ঘোমটা তুলে দাঁড়ান। নিজের কষ্টের কথা সমস্তটা বলেন। তারপর ওঁনার স্বামীর পায়ের প্লাস্টারের খরচের জন্য আর্থিক সাহায্য তুলে দেওয়া হয়। দেড় দশক ধরে থলিয়া-বাকসি নদীতে নৌকা বেয়ে চলেছেন। কেউ কোনদিন এতটুকু সাহায্য করেনি। আর্থিক সাহায্য পেয়ে অন্ন’র দু’চোখে জল এসে যায়।

অন্ন দলুই এ দিন জানান, নদীর পাশে গ্রামে বাস। ছেলে মেয়েদের সবার বিয়ে হয়ে গিয়েছে। নাতি-নাতনি রয়েছে। ওঁদের সংসারে আমাদের খাবার জোটে না। বাধ্য হয়ে দশ-পনেরো বছর নৌকা চালাচ্ছি। এত কষ্ট করি তবুও কেউ মুখ তুলে তাকায় না। সরকারের সাহায্য পেতে প্রশাসনের কাছে যেতে হয়। উনি নদীর পাড় ধরে এসেছেন আমাদের সাহায্য করতে যা দেখে অবাক হয়েছি। উনি আমার সঙ্গে কথা বলেন। স্বামী’র পায়ের প্লাস্টারের জন্য আর্থিক সাহায্য তুলে দেন। এছাড়া অন্যান্য সরকারি সুবিধা পাবার জন্য একটা ফর্ম দিয়েছেন। কাল পঞ্চায়েত দপ্তরে যাবার জন্য বলা হয়েছে। কাল স্বামীর পায়ের প্ল্যাস্টার করাতে যাব। পরশু ওঁনার অফিসে যাব সরকারি সুযোগ সুবিধা দেবেন বলেছেন। আমরা গ্রামের মানুষ তবুও ওঁনাদের সাহায্য পেয়ে স্বামীর পায়ের প্ল্যাস্টার করাতে পারবো।

আমতা ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল বলেন, “বিষয়টি জানতে পেরে উনি নদীর যে ঘাটে পারাপার করেন আমি বুধবার বিকালে চলে আসি। ওঁনার কাছ থেকে সমস্তটা শুনি। স্বামীর পায়ের প্ল্যাস্টার করাবার খরচ হাতে তুলে দিই। সেইসঙ্গে সরকারি যে সমস্ত প্রকল্প রয়েছে তারমধ্যে ওঁনাদের কোনটা দেওয়া যায় সেটাও দেখছি। একটা ফর্ম দিয়েছি বৃহস্পতিবার ওঁনাকে আসতে বলি। জি.আর দেবার কথা বলেছি। সেইমত বৃহস্পতিবার পঞ্চায়েত সমিতিতে আসেন অন্ন দলুই। হাতে করে নিয়ে এসেছেন পুজোর প্রসাদ ও ফুল। এই মানুষ গুলোর জন্য আমাদের বাংলা আজ সুজলা সুফলা।

এছাড়াও চেক করুন

আর মাত্র একদিন পরেই বিশ্বকর্মার পূজা,শেষ তুলির টান দিতে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা

স্টিং নিউজ সার্ভিস,পশ্চিম মেদিনীপুর: আর মাত্র একদিন তারপরেই শিল্প দেবতা বিশ্বকর্মার পূজা। মৃৎশিল্পীদের শেষ মুহূর্তে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.