Breaking News
Home >> Breaking News >> একসময়ের ‘দুর্গম’ দ্বীপ অঞ্চলে খিচুড়ি খেয়ে রাত্রিযাপন করে “দিদিকে বলো” কর্মসূচিতে সুকান্ত পাল

একসময়ের ‘দুর্গম’ দ্বীপ অঞ্চলে খিচুড়ি খেয়ে রাত্রিযাপন করে “দিদিকে বলো” কর্মসূচিতে সুকান্ত পাল

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়া: “দিদিকে বলো” কর্মসূচি সফল করতে এর আগে মাঠে নেমেছেন জেলার তৃণমূল বিধায়করা। এবার রাজ্য কমিটির নির্দেশে দ্বীপ অঞ্চলের সাধারণ মানুষের দরজায় পৌঁছে গেলেন আমতা-২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল। দলীয় কর্মীর বাড়িতে খিচুড়ি খেয়ে রাত্রিযাপন করে সারলেন “দিদিকে বলো” প্রচার।

হাওড়া জেলার শেষ প্রান্ত মুণ্ডেশ্বরী এবং রূপনারায়ণ নদীতে তিন দিক ঘেরা দ্বীপ অঞ্চল উত্তর ভাটোরা। দ্বীপ অঞ্চলের ভৌগোলিক অবস্থান যা অন্যান্য জায়গার সঙ্গে অনেকটাই পরিবর্তন। কুলিয়া ঘাটে সেতু তৈরির কাজ শুরু না হওয়ায় ‘দ্বীপ’ অঞ্চলের তকমা আজও সেঁটে। এখানে রাজনৈতিক চাপানউতোর সকাল-সন্ধ্যায় পাল্টে যায়। এমন একটি এলাকায় প্রথম শুভ্রতার সকাল এনে দেয় উলুবেড়িয়ার প্রয়াত সাংসদ সুলতান আহমেদ। মূলত তাঁর আনুগত্যে উত্তর ভাটোরা এবং ঘোড়াবেড়িয়া-চিৎনান গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ন্ত্রণে আসে তৃণমূল কংগ্রেসের। তবে নিজেদের মধ্যে চোরাগোপ্তা লড়াই চলতে থাকে। ২০১৭ সালে এখানেই মৃত্যু হয় দু’জন প্রভাবশালী তৃণমুল কংগ্রেস নেতা। এমন দুর্গম এলাকায় শনিবার দুপুরে পৌঁছে যান আমতা-২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল।

শ্রাবণ মাসের শেষ শনিবার হওয়ায় উত্তর ভাটোরায় বড়বাবার পূজা উপলক্ষে বহু মহিলা আসেন। ভোগ বিতরণ অনুষ্ঠানে সকলের সাথে মিশে যান। বড়বাবা পুজোয় আগত পুণ্যার্থীদের মাঝে “দিদিকে বলো” প্রচার সারেন। এই এলাকায় একাধিকবার এসেছেন। প্রায় প্রত্যেক মানুষের সঙ্গে সুকান্ত বাবুর পরিচয়। তারপর বিভিন্ন পাড়ায় মানুষের কাছে “দিদিকে বলো” প্রচার কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে চলেন। এলাকার শিক্ষক থেকে সাধারণ মানুষের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ বিনিময় করেন। এরপর পৌঁছে যান উত্তর ভাটোরার গায়েনপাড়ায় জনতার দরবারে। সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ সম্পর্কিত আলোচনা ও তৎপরতার সাথে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। “দিদিকে বলো” কার্ড তুলে দেওয়া হয়। দলীয় সতীর্থ, সহযোদ্ধাদের সঙ্গে এলাকার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথোপকথন করেন। তারপর সকলের সাথে মেঝেতে বসে আলুভাজা, বেগুনভাজা দিয়ে খিচুড়ি খেয়ে নৈশভোজ সারেন।

রাত্রিযাপন শেষে সাত সকালে উঠে শুরু হয় গ্রাম প্রদক্ষিণ। পথ পরিক্রমায় সাধারণ মানুষের সাথে আলাপ আলোচনা করতে থাকেন। পাড়ার চায়ের দোকান ও ক্লাব প্রাঙ্গণে সৌজন্য আলাপ আলোচনার মাঝেই মাটির ভাঁড়ে গরম চায়ে চুমুক দিতে থাকেন। গায়েন পাড়ায় শহীদ সুশান্ত গুছাইতের স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন এবং উত্তর ভাটোরা বাগবাজারে দলীয় সহকর্মীদের নিয়ে দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন। গ্রামীণ গরীব মানুষের পরিবারদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের সুবিধা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। প্রক্রিয়ার কাজ চলাকালীন উত্তর ভাটোরায় একটি জায়গায় পরিদর্শন এবং উপভোক্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ সারেন।

এ দিন সুকান্ত পাল জানান, উত্তর ভাটোরা এবং কল্যাণপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে “দিদিকে বলো” কর্মসূচী পালনে রাজ্য দফতর থেকে নির্দেশ পাই। সেইমত শনিবার থেকে রবিবার দুপুর অবধি উত্তর ভাটোরায় থেকে কর্মসূচী পালন করি। একজন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিকে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মানবিক প্রকল্প সম্পর্কে জ্ঞাত করি এবং সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করি। গ্রামে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের উপভোক্তাদের সাথে এই মরসুমের চাষবাস সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। কালিতলা বাজারে এলাকার চাষিদের সঙ্গে কথা বলে ফিরে আসি।

এছাড়াও চেক করুন

কালীগঞ্জে আলিয়া মাদ্রাসা ভোটে জয়ী তৃণমূল

স্টিং নিউজ সার্ভিস, নদিয়াঃ কালীগঞ্জের জানকিনগর আলিয়া মাদ্রাসার নির্বাচনে নির্বাচনে রবিবার ব্যাপক ভোটে জয়লাভ করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.