Breaking News
Home >> Breaking News >> উত্তর ২৪ পরগণা জেলার যুবককে কুপিয়ে খুন, রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার নদিয়ার ধুবুলিয়ায়

উত্তর ২৪ পরগণা জেলার যুবককে কুপিয়ে খুন, রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার নদিয়ার ধুবুলিয়ায়

স্টিং নিউজ সার্ভিসঃ এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে খুন করে মৃতদেহ শুক্রবার রাতে নদীয়ার ধুবুলিয়া থানার বটতলার পেট্রোল পাম্পের কাছে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে ফেলে রেখে পালিয়ে গেল দুস্কৃতিরা। জাতীয় সড়কের ধার থেকে পুলিশ রক্তাক্ত মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

পুলিশ খুনের তদন্ত শুরু করলেও এখনও পর্যন্ত খুনের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে অভিযুক্তদের কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। ওই খুনের বিষয়ে কৃষ্ণনগরের জেলা পুলিশ সুপার জাফর আজমল কিদোয়াই জানিয়েছেন, ‘পুলিশ ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করে দিয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত খুনের অভিযুক্তদের ধরা যায়নি। পুলিশ অভিযুক্তদের ধরার চেষ্টা চালাচ্ছে।’

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম প্রদ্যুৎ গাইন, বয়স চুয়াল্লিশ বছর। তার বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুরে। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ ধুবুলিয়ার বটতলা পেট্রলপাম্পের কাছে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে প্রদ্যুৎ গাইনকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তার গলার নলি কাটা ছিল। এছাড়াও চোখে-মুখে ও শরীরের একাধিক জায়গায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে।

উওর ২৪ পরগণা জেলার ইছাপুরের বাসিন্দা প্রদ্যুৎ গাইনকে কোনো গাড়িতে করে তুলে নিয়ে এসে পেট্রোল পাম্পের কাছে দুষ্কৃতীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করেছে বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। আবার কোনো গাড়ি ফলো করে দীর্ঘ পথ পেরিয়ে এসে নির্জন কোনো জায়গায় খুন করে প্রদ্যুৎ গাইনকে ধুবুলিয়ার ৩৪ নং জাতীয় সড়কের ধারে ফেলে রেখে গিয়েছে বলেও মনে করছে পুলিশ।

পুলিশের ধারণা, ধুবুলিয়া পেট্রোল পাম্পের কাছে কোন একটি জায়গায় প্রদ্যুৎ গাইনকে খুন করা হয়েছে। কারণ, মৃতদেহ উদ্ধারের পর ঘটনাস্থলে ছিল রক্তের দাগ। সেই সময় বৃষ্টি হচ্ছিল। জাতীয় সড়কের ধারে নিচু জায়গা থেকে উদ্ধার হওয়া মৃত দেহের রক্ত বৃষ্টির জলে ধুয়ে যাচ্ছিল। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধারের পর পুলিশ একটি চার চাকার গাড়ি আটক করেছে। মৃতদেহ উদ্ধারের বেশ কিছুক্ষণ পর সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে মৃতকে। খবর পাঠানো হয় মৃতের বাড়ির লোকজনের কাছে। পুলিশের কাছ থেকে সেই খবর পেয়ে ধুবুলিয়া থানাতে ছুটে আসেন মৃতের পরিবারের লোকজন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, যে পেট্রোল পাম্পের কাছে জাতীয় সড়কের ধারে থেকে মিলেছে রক্তাক্ত মৃতদেহটি, সেই পেট্রোল পাম্পের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখেছে পুলিশ। তাতে ধরা পড়েছে খয়েরি রঙের একটি চার চাকার গাড়ি। সেই গাড়ির নম্বর প্লেট থেকে পুলিশ জানতে পারে, গাড়িটির মালিক একজন মহিলা। যদিও মৃতদেহ উদ্ধারের পরেই পুলিশের একটি টিম তদন্তে নেমে পড়ে। ধুবুলিয়া থেকে জাতীয় সড়ক ধরে বেশ কিছুটা এগিয়ে যাওয়ার পর বেথুয়াডহরি টোল গেটের সামনে থেকে উদ্ধার হয় আরোহীহীন একটি গাড়ি। ওই গাড়িটি রাস্তার ধারে দাঁড় করানো ছিল। গাড়ির মধ্যে ছিল গাড়ির চাবিও। ওই গাড়িতে ঘাস ও কাদার দাগ ছিল।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান ,খুনের আগে সম্ভবত ধস্তাধস্তি হয়েছিল। পুলিশ জানতে পারে, ওই গাড়িটির মালিক প্রদ্যুৎ গাইন। গাড়িটি আটক করার পর পুলিশের কাছে তদন্তের প্রাথমিক ধাপ অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। মৃতের পরিচয় জানতে পারে পুলিশ। তা জানার পরে খবর দেওয়া হয় মৃতের বাড়ির লোকজনকে। তারা এসে ধুবুলিয়া থানায় মৃতদেহ সনাক্ত করেন।

যদিও পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, প্রদ্যুৎ গাইনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে নৃশংসভাবে খুন করে জাতীয় সড়কের ধারে মৃতদেহ ফেলে রেখে দুষ্কৃতীরা খয়েরি রঙের গাড়িটি নিয়ে বহরমপুরের দিকে পালিয়ে যায়। খুনের পর প্রদ্যুৎ গাইনের গাড়িটি কোন রকম ভাবে চালিয়ে বেথুয়াডহরি টোলগেটের কাছে রেখে দিয়ে তারা খয়েরি রঙের গাড়ি করে অন্যত্র কোথাও চলে গিয়েছে।

পুলিশের একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদেহের শরীরে খুবই অল্প পোশাক ছিল। পুলিশ তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়াও চেক করুন

কালীগঞ্জে আলিয়া মাদ্রাসা ভোটে জয়ী তৃণমূল

স্টিং নিউজ সার্ভিস, নদিয়াঃ কালীগঞ্জের জানকিনগর আলিয়া মাদ্রাসার নির্বাচনে নির্বাচনে রবিবার ব্যাপক ভোটে জয়লাভ করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.