Breaking News
Home >> Breaking News >> সম্প্রীতি’র বার্তা কুড়ি জন যুবক হাজারখানেক মানুষের হাতে বিরিয়ানি ও রসগোল্লা তুলে দিল

সম্প্রীতি’র বার্তা কুড়ি জন যুবক হাজারখানেক মানুষের হাতে বিরিয়ানি ও রসগোল্লা তুলে দিল

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়াঃ কেউ পড়াশোনা করে, কেউ আবার ট্রেনিং শেষে সবে কাজে যোগ দিয়েছে। কেউ ভাগচাষীর কাজ করে সংসারে কোনক্রমে আলো জ্বেলেছে। এমন জনা কুড়ি যুবক ৭৩-তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে গ্রামবাসীদের মাঝে সম্প্রীতি’র আলোয় রাঙিয়ে তুললো। গ্রামীণ হাওড়া’র ধাঁইপুর নবশক্তি সংঘ ক্লাবের সদস্যদের আকুলতায় এক হাজার মানুষের হাতে বিরিয়ানি ও রসগোল্লা তুলে ইচ্ছে-পূরণ ঘটালো।

স্বাধীনতা দিবসের দিন সকাল থেকেই দেশের পাশাপাশি রাজ্যের প্রতিটি পরগনায় মহা সমারোহে পালিত হয় স্বাধীনতা দিবস। প্রভাতফেরি, দেশভক্তি ও দেশাত্মবোধক গানের মধ্য দিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলনে মেতে ওঠে আসমুদ্র-হিমাচল। বাদ যায়নি জম্মু-কাশ্মীরও। এমন এক দিনে গ্রামবাসীদের মধ্যে সৌহার্দ্য বিনিময় ও ভালোবাসার বন্ধন সুদৃঢ় করেছে ‘ধাঁইপুর নবশক্তি সংঘ’। একাধিক গ্রামের ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ মানুষদের বিরিয়ানি খাওয়ানোর এক বছর আগে নেওয়া শপথ ৭৩-তম স্বাধীনতা দিবসের দিন ওঁরা পূরণ করলো।

বুধবার গোটা রাত সদস্যরা জেগে পাঁচ হাড়ি বিরিয়ানি বানিয়েছে। তা বৃহস্পতিবার চারটে গ্রামের প্রায় আটশো গ্রামবাসীদের মধ্যে প্যাকেটে করে তুলে দেওয়া হয়। পাশাপাশি প্লেটে করে রসগোল্লা দেওয়া হয় আরও শ’তিনেক মানুষ কে। তুলে দেওয়া হয় একটি করে জাতীয় পতাকা। এমন অভিনবত্ব স্বাদ বিভিন্ন বয়সী মানুষের মন ছুঁয়ে গিয়েছে। বাস চালক থেকে ছোট-বড় গাড়ি চালক এবং যাত্রীদের হাতে রসগোল্লা ও একটি জাতীয় পতাকা তুলে দেওয়া হয়। পাশাপাশি এলাকার জঞ্জাল সকলে মিলে নিজ হাতে পরিস্কার করে দেয়। সমস্তটা নেটিজেন দের মোবাইলের মধ্য দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরা হয়। ডিজিটাল দুনিয়াতে এ ছবি প্রকাশ পেতেই বাহবা কুড়িয়েছে। এমন উদ্যোগ কে সাধুবাদ জানিয়েছে সুশীল সমাজ। তাঁদের কথায়, ওঁরা চঞ্চল, ওঁরা বুদ্ধিদীপ্ত। ওঁরা এই সমাজের ভবিষ্যতের পথিকৃৎ। ওঁদের মধ্যে শৃঙ্গ জয়ের ইচ্ছে ঘোরাফেরা করছে। ওঁদের মধ্য দিয়ে আগামী খু্ঁজে পাবে নবজাগরণ।

ক্লাবের পাশে মঞ্চ বেঁধে ফ্লেক্স টাঙানো হয়। তাতে ভারতীয় জওয়ানদের লড়াইয়ের ছবি একি সঙ্গে ফাঁসির মঞ্চে জীবন দেওয়া ভগৎ সিং, ক্ষুদিরাম বসু এবং নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু’র ছবি দেওয়া হয়। রাখা হয় ভারত মাতার ছবি। জাতীয় পতাকায় মুড়ে দেওয়া হয় ক্লাব প্রাঙ্গন। জাতি-ধর্ম-বর্ণ কে দূরে সরিয়ে ও সমস্ত ভেদ-বিভেদ ভুলে ভারতীয় হিসেবে স্বাধীনতা দিবসের দিনটিকে একাত্ম করে তোলার ব্রত নিয়েছিল ওঁরা। ২৪ ঘন্টা কঠোর পরিশ্রম শেষে আটশো প্যাকেট বিরিয়ানি বিভিন্ন গ্রামের স্কুল পড়ুয়া ও সাধারণ মানুষের হাতে তুলে দিতে পেরেছে। এমন অভিনব শুভেচ্ছা বার্তা যারা বইয়ে দিয়েছে তাদের প্রত্যেকের বয়স আঠারো থেকে তিরিশের মধ্যে।

ক্লাবের সদস্যদের কথায়, ভগৎ সিং, ক্ষুদিরাম বসু এবং নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু কে মঞ্চে রাখার মধ্য দিয়ে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস তুলে ধরতে চেয়েছি। আমাদের মনে রাখা দরকার, ধনী ও দরিদ্রের মধ্যে চওড়া ব্যবধান থাকবে না। এমন এক সমাজের স্বপ্ন দেখতেন ভারত মায়ের বীর সন্তান ভগৎ সিং। ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়ে যিনি হাসি মুখে মৃত্যুকে বরণ করে নিয়েছিলেন তিনি ক্ষুদিরাম বসু। আর নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আজও সংগ্রামের রক্ত বইয়ে দেন। যাকে ব্রিটিশ সরকার এগারো বার কারারুদ্ধ করেছিল। তারপরও তাঁকে দমিয়ে রাখা যায়নি। তাঁর কটা শব্দ আজও যুব সমাজ কে লড়াইয়ের পথ দেখায়। “তোমরা আমাকে রক্ত দাও, আমি তোমাদের স্বাধীনতা দেবো।”

দিনের শেষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে আশেপাশের পাঁচটি গ্রামের পঁচিশ জন ছোট-ছোট ছেলে-মেয়ে নৃত্য-সঙ্গীত ও আবৃত্তি এবং যোগ ব্যায়ামের মধ্য দিয়ে কয়েক ঘন্টা মঞ্চ মাতিয়ে রাখে। সূরজ, দুই মলয়, তাপস, অমিত, কৃষ্ণেন্দু, কৌশিক, তাপু, সন্দীপ, সুকান্ত, অভিষেক, প্রসেনজিৎ, লাল্টু, শুভ, দেবাশীষ, সৌমেন, কুশল, রাহুল, প্রদীপ সহ মোট কুড়ি জন যুবক স্বাধীনতা দিবসের দিনটিকে গ্রামের মাঝে “সম্প্রীতির আলোয়” তুলে ধরলো।

এছাড়াও চেক করুন

কালীগঞ্জে আলিয়া মাদ্রাসা ভোটে জয়ী তৃণমূল

স্টিং নিউজ সার্ভিস, নদিয়াঃ কালীগঞ্জের জানকিনগর আলিয়া মাদ্রাসার নির্বাচনে নির্বাচনে রবিবার ব্যাপক ভোটে জয়লাভ করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.