Breaking News
Home >> Breaking News >> ক্ষোভে ফুঁসছে গ্রাম পঞ্চায়েতের অস্থায়ী কর্মচারী গ্রাম রোজগার সহায়করা (GRS )

ক্ষোভে ফুঁসছে গ্রাম পঞ্চায়েতের অস্থায়ী কর্মচারী গ্রাম রোজগার সহায়করা (GRS )

স্টিং নিউজ সার্ভিসঃ গ্রাম পঞ্চায়েতের MGNREGS এর অস্থায়ী কর্মচারী গ্রাম রোজগার সহায়ক, তারা নারেগার সাথে যুক্ত সমস্ত রকম কাজ করে থাকে।

কয়েকমাস পূর্বে প্রায় দুই হাজার সহকর্মী নিয়ে পঞ্চায়েত দপ্তরে বিভিন্ন দাবি নিয়ে ডেপুটেশনে সামিল হয়, ডেপুটেশনে এর মুল দাবির মধ্যে ছিল ৬০ বছরের সুনিশ্চিত করণ , বেতন বৃদ্ধি, সহ আরো কয়েক দফা দাবি যা সরকার পূর্বে ঘোষণা করেছেন এবং ফিনান্স থেকে অর্ডার বার হয়েছে।

অস্থায়ী কর্মচারীদের স্বার্থে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী বারবার বলেছেন তাদের চাকরি হারানোর ভয় নেই , সরকারের এধরনের নির্দেশিকা রয়েছে কিন্তু বাস্তবায়ন হয়নি । অর্থ দপ্তরের কয়েকটি নির্দেশিকা যেখানে পরিস্কার অস্থায়ী কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি সহ অন্যান্য সুবিধার কথা বলা হয়েছে সেগুলো দেখুন

1107 F(P) , dated -25 th February 2016 , 1033 F(P2) , Dated -8th February 2019সদ্য বার আরো একটি নির্দেশিকা যা পূর্বের নির্দেশিকার মডিফায়েড কপি 3998-F(P2) Dated -15 th July 2019 .

এই নির্দেশিকা তে বলা আছে
১. যারা টানা দশ বছর কাজ করেছেন এবং প্রতি বছরে কমপক্ষে ২৪০ দিন হাজিরা রয়েছে তারা ৬০ বছর পর্যন্ত এই কাজে যুক্ত থাকবেন ।

২. এখানে গ্রুপ সি এবং গ্রুপ ডি হিসেবে ৫ বছরের নিচে ,৫ বছর থেকে ১০ বছরের মধ্যে এবং ১০-১৫ বছর ,১৫-২০ বছর এভাবে বেতন কাঠামো ঠিক করা রয়েছে ।

৩. সেখানে বলা আছে একটা অবসরের সময় এককালিন ৩ লাখ টাকা , প্রতি বছরের জুলাই মাসে ৩% ইনক্রিমেন্ট , এবং সাথে মেডিকেল লিভ ও অন্যান্য সুবিধা সম্পর্কে ।

সংগঠনের সভাপতি সুপ্রতিম জানা বলেন , আমরা কিভাবে বঞ্চিত এবং শোষিত হচ্ছি তা আমরা দপ্তরে বহুবার বলেছি , প্রচুর চিঠি করেছি দপ্তরে কিন্তু কার্যকরি হয়নি ।

আমাদের দাবি কোন বাড়তি দাবি নয় সরকারের যা ঘোষিত অর্ডার রয়েছে সেগুলোই লাগু করার কথা বারবার বলেছি । কয়েকমাস পূর্বে আমরা শান্তিপূর্ণ ডেপুটেশন মাধ্যমে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছিলাম ,

ডেপুটেশনে কমিশনার কয়েকটি দাবি মেনে অর্ডার বার করার কথা বলেছিলেন তার মধ্যে অন্যতম জিও ট্যাগিং এর বকেয়া টাকা মিটিয়ে প্রতি মাসে ১০০০ টাকা দেওয়ার কথা বলেছিলেন কিন্তু তা বাস্তবায়ন হয়নি উল্টে আমাদের সিনিয়রিটি কেটে নেওয়া হয়েছে , ভোটের আগে বেতন বৃদ্ধির অর্ডার বার হল সেখানে ফিক্স ১২০০০/- ধার্য করে দিলেন ।

কোথায় গেলো আমাদের ১১ বছরের সিনিয়রিটি , কোথায় গেলো আমাদের ট্রেন্ড হওয়ার বাড়তি ৫০০ টাকা ? আমরা কয়েক সপ্তাহ আগে মাননীয় ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জির সঙ্গে তৃণমূল ভবনে দেখা করি উনাকে আমাদের দুর্দশার কথা সবিস্তারে বলি উনি বলেন বেতন বেড়েছে তা জানি কিন্তু তোমাদের ইনক্রিমেন্ট বন্ধ হয়েছে এটা তো জানিনা । উনি আশ্বাস দিয়েছেন দপ্তরের রিভিউ মিটিংয়ে আমাদের বিষয়ে কথা বলবেন ।

আমরা উনার প্রতি পূর্ণ আশাবাদী। আমরা কিছুদিনের মধ্যেই দপ্তরে জানতে চাইবো উপরিউক্ত সরকার ঘোষিত অর্ডারের মধ্যে পড়ি কিনা যদি দপ্তর থেকে সদুত্তর না পাই আমরা বাধ্য থাকবো বৃহত্তর আন্দোলনে যেতে এবং আইনি পদক্ষেপ নিতে ।

এছাড়াও চেক করুন

মাদারিহাটে জাতীয় সড়কের উপর পথ দুর্ঘটনায় আহত চালক

স্টিং নিউজ সার্ভিস: পথ দুর্ঘটনা আহত চালক। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল গভীর রাতে মাদারিহাটে ৩১ নং …

Leave a Reply

Your email address will not be published.