Breaking News
Home >> Breaking News >> ‘পৌলমী’ আর বেঁচে নেই

‘পৌলমী’ আর বেঁচে নেই

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজঃ এই শহরের ‘পৌলমী’ মারা গেছে। হ্যাঁ পৌলমী এ রাজ্যের এক ‘মেয়ে’। স্যানাল বাড়ির ‘বৌ’। আর এক সদ্য শিশুর জন্ম দেওয়া ‘মা’। এই শহরের মোটা টাকা বিল বানানো ঝাঁ চকচকে বেসরকারি হাসপাতালের ভুল চিকিৎসায় মারা গেছেন ‘পৌলমী’!

মাতৃত্বের স্বাদ পেতে তখন আর কয়েক মূহুর্তের অপেক্ষা। বেসরকারি হাসপাতালের বেডে শুয়ে সময় গোনা শেষ হতেই নিয়ে যাওয়া হয় ওটি তে। জন্ম দেয় একটি ফুটফুটে সন্তানের। তারপর! তার পর সন্তানকে নিয়ে মধ্য রাত অবধি দিব্যি সুস্থ ছিল। কিন্তু রাত পার হতেই সমস্তটা ওলট-পালট হয়ে গেল। পৌলমী এখন এ পৃথিবী ছেড়ে চলে গিয়েছে। ভুল বলা হল। চিকিৎসকদের ভুল চিকিৎসার কারণে মৃত্যু হয়েছে ‘পৌলমীর’।

এ শহর কিছুদিন আগে দেখেছিল জুনিয়র চিকিৎসকদের জীবনের লড়াই। তাদের সুরক্ষা কবচ। কিন্তু ‘পৌলমী’ তার কি ছিল অপরাধ ? কেন তাকে জন্ম নেওয়া একরত্তি কে ছেড়ে চলে যেতে হল ? তার শরীরের একের পর এক অঙ্গ এক রাতেই কেন বন্ধ হয়ে গেল ? হঠাৎ কি এমন হয়ে গেল যে প্রয়োজন পড়েছিল ভেন্টিলেশনের ?

ও তো সুস্থই ছিল। নিজের সন্তান জন্মের খবর রাত এগারোটা অবধি সোশ্যাল মিডিয়ায় ও হোয়াটসঅ্যাপে জানিয়েছে। তারপর! তার পর ঘন্টা পাঁচ-ছয়েকের মধ্যে সব শেষ। সদ্য মাতৃত্বের স্বাদ নেওয়া বছর উনত্রিশ এর ‘পৌলমী’ র দেহ বের হল ওই বেসরকারি হাসপাতাল থেকে সাদা কাপড়ে মুড়ে।

বিচার কে দেবে! ওই একরত্তির মাতৃত্বের ভাড় কে নেবে! কত টাকায় নিজেদের দোষ মুছে নেবে দক্ষিণ কলকাতার ওই বেসরকারি হাসপাতাল! তদন্ত হোক। অভিযুক্ত চিকিৎসকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হোক। যাদের একটুখানি ভুলের জন্য ‘পৌলমী’ পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছে। সন্তানের ঠোঁটে মাতৃদুগ্ধ দেওয়া থেকে চিরতরে বঞ্চিত করা হল। আমরা চাই অভিযুক্ত চিকিৎসকের কঠিন সাজা। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হোক।

একজন আহ্লাদী কন্যা, গর্বিত দিদি এবং সুখি স্ত্রী ‘পৌলমী’ ফেসবুকে শেয়ার করবে না ” জুনিয়র ডাক্তারদের নিরাপত্তা বাড়ানো হোক। ওঁরা যে ভগবানের পরে স্থান পায়।”

এছাড়াও চেক করুন

হিংস্র প্রাণী না থাকায় সার্কাসে দর্শক বিমুখ, গ্রামীণ মেলায় উপচে পড়ছে ভিড়

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়াঃ ডিসেম্বর মাস আসলেই গ্রাম বাংলায় সার্কাসের তাঁবু বসতো। বাঘ-সিংহ, বিদেশি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.