Breaking News
Home >> Breaking News >> দিদি-ভাইপোকে আপ্যায়নের জন্য কোচবিহারে আমন্ত্রণ নিশীথের

দিদি-ভাইপোকে আপ্যায়নের জন্য কোচবিহারে আমন্ত্রণ নিশীথের

মনিরুল হক, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, কোচবিহারঃ নির্বাচনের আগে সাত ধরে কোচবিহারে পড়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ফল প্রকাশের পর আর আসছেন না। আর তাই দিদি- ভাইপোকে আসার আমন্ত্রণ জানালেন বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। বললেন, আপ্যায়নের জন্য প্রস্তুত রয়েছেন তাঁরা।
আজ সিতাইয়ের তামাকহাটি মাঠে একটি জনসভা করে বিজেপি। ওই সভায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, কোচবিহার জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতি রাভা উপস্থিত ছিলেন।

সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে নিশীথ প্রামাণিক বলেন, “নির্বাচনের আগে টানা সাত দিন ধরে কোচবিহারে এসে পড়েছিলেন দিদি। কিন্তু নির্বাচনের পরে দিদি- ভাইপো আসছেন না। অন্য নেতাদের পাঠাচ্ছেন। দিদি-ভাইপোকে আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আমরা আপ্যায়নের জন্য প্রস্তুত।”

লোকসভা নির্বাচনের পরাজয়ের পর কোচবিহার জেলায় প্রায় প্রতিদিন কোন না কোন এলাকার তৃণমূল নেতা ঘেরাও বিক্ষোভের মুখে পড়ছেন। অনেককে কাটমানির টাকাও ফেরত দিতে দেখা গিয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ নিজেও বিক্ষোভের মুখে পড়েছেন। শুধু তাই নয়, পরাজয়ের পর তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি নিজেও পর পর দুবার কোচবিহারে এসে পদে পদে বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন। রাস্তায় বাঁধা পেয়ে জেলার একটি ব্লকের কর্মী সভায় যোগ না দিয়ে ফিরে আসতে হয়েছে তাঁকে।

এদিন সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে নাম না করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে আসার আমন্ত্রণ ও আপ্যায়ন করার জন্য প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ। রাজনৈতিক মহলের ধারণা, কোচবিহারে আসলে সুব্রত বক্সিকে বিক্ষোভ দেখানোর মতই দিদি ভাইপোকে আপ্যায়নের কথাই ঘুরিয়ে বলেছেন নিশীথ প্রামাণিক।

বিজেপির এক জেলা নেতার কথায়, “এর আগে তাঁদের দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ শীতলখুচি যাওয়ার পথে হরিণচওড়ায় আটকে দেওয়া হয়। আজ যদি সাধারণ মানুষ দিদি ভাইপোকে আটকে দেন, তাহলে দোষের কি আছে?”কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে একমাত্র সিতাই বিধানসভা এলাকা থেকেই সব থেকে বেশী ভোটের ব্যবধানে এগিয়েছিল তৃণমূল।

কিন্তু কোচবিহার কেন্দ্রে পরাজয়ের পর সিতাইয়ের চিত্র বদল হতে থাকে। সেখানকার তৃণমূল বিধায়ক জগদীশ বসুনিয়া কার্যত এলাকা ছাড়া হয়ে রয়েছেন। সাধারণ তৃণমূল কর্মীদের একটা বড় অংশ বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। আজ সিতাইয়ের ওই সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে লোকসভা নির্বাচনের আগে ওই এলাকায় তৃণমূলের ভয়াবহ সন্ত্রাসের কথা তুলে ধরেন নিশীথ প্রামাণিক। সেখানে তাঁদের প্রচার করতে বাঁধা দেওয়া, সাধারণ ভোটারদের ভোট দিতে না দেওয়ার অভিযোগ করেন। বলেন, “একসময় যিনি এলাকার ডন হয়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছিলেন,তিনি আজ কোথায়?”

পাশাপাশি সিতাইয়ের মানুষের অভাব অভিযোগের কথা জানতে সেখানে একটি সাংসদ পরিষেবা কেন্দ্র খোলার কথা ঘোষণা করেছেন নিশীথ প্রামাণিক। যেখানে মানুষ এসে ঠিকানা ফোন নম্বর দিয়ে তাঁদের সমস্যার কথা জানাতে পারবেন। যা মেটানোর উদ্যোগ নেবেন তিনি। সাংসদের ওই ঘোষণায় সিতাইয়ের সাধারণ মানুষ ব্যাপক খুশি।

এছাড়াও চেক করুন

মাদারিহাটে জাতীয় সড়কের উপর পথ দুর্ঘটনায় আহত চালক

স্টিং নিউজ সার্ভিস: পথ দুর্ঘটনা আহত চালক। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল গভীর রাতে মাদারিহাটে ৩১ নং …

Leave a Reply

Your email address will not be published.