Breaking News
Home >> Breaking News >> তিরিশ সেকেন্ডের আষাঢ়ে ঘুর্ণিঝড়ে উড়ল চালা, পড়ল গাছ, লন্ডভন্ড আমতার দুটি গ্রাম

তিরিশ সেকেন্ডের আষাঢ়ে ঘুর্ণিঝড়ে উড়ল চালা, পড়ল গাছ, লন্ডভন্ড আমতার দুটি গ্রাম

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়া: তপ্ত আষাঢ়ে শুকিয়ে যাওয়া বিকালে আকাশে ছেয়েছিল মেঘ। তারপর ঝিমঝিম করে কয়েক পশলা বৃষ্টি। তার পর যা ঘটল গ্রামবাসীরা মনে করলেই চমকে উঠছে। মাত্র তিরিশ সেকেন্ডের ঘুর্ণিঝড়। তাতেই লন্ডভন্ড অবস্থা গ্রামীণ হাওড়ার আমতা থানার সারদা ও তাজপুর গ্রাম। উপড়ে গেল দু’শর বেশি গাছ। ভাঙল সত্তরটির কাছাকাছি বিদ্যুতের খুঁটি। উড়ল কুড়িটির বেশি দোকানের চালা। নারীট-বাইনান রুটে ২৪ ঘন্টা বন্ধ যান চলাচল।

এ দিন সকাল থেকে কয়েক কিমি এলাকা জুড়ে কেবল বিধ্বস্ত ছবি। প্রায় তিন কিমি এলাকা জুড়ে গাছের সলিলসমাধি ঘটেছে। ঘুর্ণিঝড়ে এমন লন্ডভন্ড চেহারা শেষ কবে দেখেছে মনে করতে পারছে না রাজু, শ্রীমন্ত, আকাশ, প্রকাশ, লাভন্য হাজরা সহ একাধিক কলেজ পড়ুয়া। মঙ্গলবার বিকেলে আচমকা ঘুর্ণিঝড় যে তান্ডব চালিয়েছে তা ভাবা যায় না। ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র কোন অংশে কম যায় না। দোকানের চালা উড়িয়ে নিয়ে গেছে প্রায় চারশো মিটার দূরে। সরু হয়ে ধ্বংসলীলা চালিয়ে গিয়েছে। ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ধ্বংসস্তূপ দেখে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। গ্রামের যে অংশ দিয়ে গিয়েছে মানুষের চলাচল কম থাকে। যে কারণে মানুষের ক্ষতি হয়নি।

আমতা ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল জানান, মঙ্গলবার বিকেলে ৪০-৫০ সেকেন্ডের মতো স্থায়িত্বর ঘুর্ণিঝড় ২কিমি এলাকা দিয়ে বয়ে গিয়েছে। ১৫০-২০০টি ছট-বড় গাছ ভেঙে ও উপড়ে গিয়েছে। বাড়ি ও দোকান মিলিয়ে ৩০-৪০টি চাল উড়িয়ে দিয়েছে। ১০-১২ পান বরজ পড়ে গিয়েছে। ৭০টির উপর বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে গিয়েছে। ঘটনার খবর পেয়েই এলাকার পরিস্থিতির উপর নজর রাখতে থাকি। বিদ্যুৎ বিভাগকে জানাই। সন্ধ্যা থেকেই জরুরী ভিত্তিতে বিদ্যুৎ বিভাগ কাজ শুরু করে দেয়। সকালে বিডিও সাহেব এবং আমি এলাকায় যাই। এলাকা পরিদর্শন করে দেখি। ক্ষতিগ্রস্থ দের তালিকা করে পাঠানোর কথা বলা হয়েছে। পঞ্চায়েত থেকে তালিকা করে পাঠানো হচ্ছে। যাদের চাল উড়ে গেছে তাঁদের পাশে দাঁড়াবার চেষ্টা করছি। এমন ঘুর্ণিঝড় বয়েছে সাম্প্রতিক কালে যা নজিরবিহীন।

তাজপুর এম এন রায় ইনস্টিটিউশনের পার্শ্ব শিক্ষক তথা এলাকাবাসী পঙ্কজ রায় জানান, সাড়ে তিনটে থেকে চারটের মাঝে শুরু হয় ঘুর্ণিঝড়। শিলাবৃষ্টির পড়ে ২০-৩০ সেকন্ডের ঝড় বয়ে যায়। ঝড়ের অমন গতি ও আওয়াজ আমরা আগে দেখিনি। কুশবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের সারদা গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকা এবং তাজপুর গ্রামের কিছুটা এলাকা দিয়ে বয়ে যায়। ৫০-এর বেশি বিদ্যুতের খুঁটি, বহু ছোট-বড় গাছ উপড়ে ও ভেঙে গিয়েছে। বিদ্যুৎ দফতর রাত থেকে কাজ শুরু করে দেয়। এ দিন বেলা বারোটার পর বিদ্যুতের প্রথম ঝলক আসে। তারপর আসছে যাচ্ছে। দফতর কাজ করছে। এলাকার আর এক বাসিন্দা প্রীতম গুপ্ত জানান, ঝড়ের গতিবেগ বেশি থাকায় অল্প সময়ে ক্ষয়ক্ষতি বেশি হয়েছে। তছনছ হয়েছে গাছপালা। উড়ে গিয়েছে বাড়ি ও দোকানের টিনের চাল। নারিট-বাইনান রুট মঙ্গলবার থেকে সম্পূর্ণ রূপে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

আমতা ২নং ব্লকের বিডিও দেবদাস নস্কর বলেন, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুকান্ত পাল এবং আমি ও রিলিফ অফিসার একত্রে গিয়েছিলাম। এলাকা পরিদর্শন করে দেখি, কয়েক সেকেন্ডের প্রবল ঘুর্ণিঝড়ে দুটি গ্রাম তছনছ হয়েছে। বাড়িঘর কম ক্ষতিগ্রস্থ হলেও বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বহু গাছ ভেঙেছে। বিদ্যুতের খুঁটি বিস্তর পড়েছে। তার ছিঁড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। কুশবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে বিএড কলেজ অবধি প্রায় দু কিমি এলাকার ক্ষতি হয়েছে। এলাকাটিতে মাঠ ও খড়ি বন বেশি। বাড়িঘর না থাকলেও বহু দোকানের চালা উড়ে গিয়েছে। দ্রুত গতিতে কাজ চলছে। বিদ্যুতের খুঁটি বসাবার জন্য অনেক টিম কাজ করছে। ৩০-৪০টি তো উপড়ে গিয়েছে। বাকি অনেক ভেঙে গিয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করবার চেষ্টা করা হচ্ছে। মৃত্যু কারও হয়নি।

এছাড়াও চেক করুন

ফাঁসিদেওয়ার মুণি চা বাগানে গণ বিবাহ অনুষ্ঠানে হাজির পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব

বিশ্বজিৎ সরকার, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, দার্জিলিংঃ শুক্রবার শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়া ব্লকের মুণি চা বাগানে শ্রীহরি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.