Breaking News
Home >> Breaking News >> সময়ের সঙ্গে চিন্তার মেলবন্ধন ঘটাতেন বরুণ সেনগুপ্ত

সময়ের সঙ্গে চিন্তার মেলবন্ধন ঘটাতেন বরুণ সেনগুপ্ত

কল্যাণ অধিকারী, হাওড়া: এগারোটা বছর তিনি নেই। তবুও থেকে গিয়েছেন বাঙালির নজরে। সহজ সরল ভাবে খবর কাগজে লেখাটা বোধহয় উনি শিখিয়ে গিয়েছেন। আবারও একটা ১৯ জুন পার হয়ে গেল। বিখ্যাত সেই বাঙালি বরুণ সেনগুপ্তর প্রয়াণ দিবস।

খবরের কাগজে লিখতে যারা ভালোবাসি। গল্প ও প্রতিবাদী লেখা নিয়ে প্রতিনিয়ত যারা চর্চা করি, আরও কিভাবে ভালো লিখব ভাবনাচিন্তা করি। তাদের কাছে আদর্শ মানুষ বরুণ সেনগুপ্ত মহাশয়। বাংলা ভাষা সহজ ভাবে লিখলে পাঠকের মনে দ্রুত পৌঁছে যায়। নইলে গুরুগম্ভীর শব্দে পাতা ভরলেও পাঠক কি পড়লো, কতটা বুঝলো সবটাই রসগোল্লা।

আমাদের বাংলায় শুদ্ধ ভাবে কথা বলা মানুষের সংখ্যা বেশি। সাধু ভাষায় কথা বলা বা বোঝার মানুষ হাতে গুনতি। রাজনৈতিক ভাষা বোঝা মানুষের সংখ্যা ক্যালকুলেটরে ধরবে না। সেটা দীর্ঘ সাংবাদিক জীবনে সমস্তটা বুঝেছিলেন। হয়তো এ জন্য এগিয়ে থাকার মিথ্যে ফানুস না উড়িয়ে প্রথম তিনে আজও বিরাজমান। উড়িয়ে দিয়ে গিয়েছেন নবজাগরণ এর বাঙালিয়ানা।

সকাল থেকে বাংলার সংস্কৃতি মেনে আমরা বাঙালিরা ট্রেনে, বাসে কাগজ পেতে চোখ বোলাতে থাকি। কমিউনিস্টদের রক্তক্ষরণ হোক বা নিপিড়ীত শিশুর বিষয় আলোচনায় এনে প্রতিবাদের জন্ম দিতে শুরু করি। তবুও সমাজের চৈতন্য ফেরে না। মোদ্দা কথা প্রতিবাদের সাহস কমে যাচ্ছে। আমরা বাঙালিরা এখন আমেরিকান ফিলোসোফি নিয়ে চলতে চাইছি। চার লাইনের কবিতা লিখতে গিয়ে ভাষা সপ্তমে নিয়ে যাই। যেখানে এভারেস্টের মেঘেরা ঘুরে বেড়ায়।

মৃত্যু হোক বা মহাকাশ অভিযান অথবা রাজনৈতিক চাপানউতোর বা মহিলাদের পোশাক সবেতেই বিজ্ঞ মানুষে পরিণত ছাপ স্পষ্ট। মনীষীদের মূর্তি ভেঙে পড়লে রাজনৈতিক আন্দোলন করি। মনে রাখা দরকার আমাদের আদর্শ বিবেকটিকে বরণ করে নেবার সময় আগত। বঙ্গে’র নব প্রজন্মকে টেনে নিয়ে যাবার মানুষের অভাবটা কমাতে হবে। হয়তোবা সেটাও দখলে আসবে কোনদিন শেষ রাতের কলমে।

আপনি আমাদের কাছে স্বচ্ছ আইকন। আজও বড্ড বেশি মিস করি স্যার আপনাকে। সত্যের কলমে আঁচড় টানা বরুণ সেনগুপ্ত।

এছাড়াও চেক করুন

মাদারিহাটে জাতীয় সড়কের উপর পথ দুর্ঘটনায় আহত চালক

স্টিং নিউজ সার্ভিস: পথ দুর্ঘটনা আহত চালক। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল গভীর রাতে মাদারিহাটে ৩১ নং …

Leave a Reply

Your email address will not be published.