Breaking News
Home >> Breaking News >> রানীগঞ্জে এবার সিটুর দলীয় কার্যালয় দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে

রানীগঞ্জে এবার সিটুর দলীয় কার্যালয় দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম বর্ধমান: রানীগঞ্জের কুনুস্তোড়িয়া এরিয়ার অমৃতনগর কোলিয়ারি ঢোকার মুখেই থাকা সিটুর দলীয় কার্যালয় এবার দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠল এক দল বিজেপির বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সকালে সিটুর ওই দলীয় কার্যালয়ের বাইরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও আসানসোলের সংসদ বাবুল সুপ্রিয় ফেস্টুন টাঙ্গানো অবস্থায় দেখা যায়, বিজেপির দলীয় পতাকা লক্ষ্য করা যায় ও ফেস্টুন এর উপর। পাশাপাশি সিটুর দলীয় কার্যালয় টিকে গেরুয়া রং মুড়ে ফেলতে দেখা যায়। এ বিষয়টি লক্ষ্য করে সিটু নেতৃত্ব বিজেপি নেতৃত্বের সাথে কথা বললে তারা এটি একটি ক্লাব করব বলে জানায় বলেই দাবি সিটু নের্তৃত্বের। আর তাতেও আপত্তি তোলে সিটু নেতৃত্ব বলে দাবি করেন সিটু নেতারা। যদিও সেসব আপত্তিকে অগ্রাহ্য করেই বিজেপির একদল সদস্য বিজেপির নেতৃত্বে বেশ কিছু কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে সকাল থেকে দলীয় কার্যালয় দখলের উদ্দেশ্যে কার্যালয়টিতে গেরুয়া রঙের মুড়ে ফেলতে তৎপর হয় ।এ বিষয়ে সিটু নেতৃত্ব মঙ্গলবার ই রানীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে**।

**এই দলীয় কার্যালয় প্রসঙ্গে জানা যায় 1991 সালে অমৃত নগর কোলিয়ারি সিটু সংগঠন এই দলীয় কার্যালয় টির উদ্বোধন করেন সিটু নেতা হারাধন রায়। তারপর পালা পরিবর্তনের সাথেই সিটু র এই দলীয় কার্যালয় টি ভেঙ্গে চুরে গুড়িয়ে দেওয়া হয় বেশ কয়েক দফায় রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল এই ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ জানায় সিটু নেতৃত্ব তারপর দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও এই কার্যালয়টি কাল কবুশে সিটু নেতারা খুলতে বলি জানা গেছে। পরে লোকসভা ভোটের আগেভাগেই এই এলাকা থেকে বেশ কিছু বাম কর্মী-সমর্থক ইসিএলের শিশু সংগঠন ছেড়ে বিজেপির শ্রমিক সংগঠনে যোগ দেয় এরপর থেকেই ওই কার্যালয়টি পুনরায় খোলার জন্য উদ্যোগ নিতে দেখা যায় তবে এবারের এই দলীয় কার্যালয় বিজেপি কর্মী সমর্থকরা খুলে সেখানে বিজেপির দলীয় কার্যালয় বানাবে বলে সিদ্ধান্ত নেয় বেশ কয়েকজন কর্মী সমর্থক অবশ্য দাবি করে এই দলীয় কার্যালয় টি স্থানীয় এলাকার ট্রেড ইউনিয়ন নেতা গঙ্গা দেয়াল সিংয়ের নির্দেশ মোতাবেক তারা খুলেছেন যদিও ওই দল ত্যাগী নেতা অবশ্য এ কথা অস্বীকার করেছেন তার কথায় ওই দলীয় কার্যালয় খোলার জন্য তিনি কোনো উদ্যোগ নেননি তার ওই কার্যালয় প্রসঙ্গে কিছু জানা নেই বলেও জানান তিনি। তবে বিজেপি নেতৃস্থানীয়রা এটি পরিত্যক্ত এলাকা ও পরিত্যক্ত বাড়ি হিসেবে পড়েছিল তা দেখেই এটি দলীয় কার্যালয় করা হচ্ছে বলে দাবি করে এক বিজেপি নেতা তো এও দাবী করে যে এখানে দীর্ঘদিন তৃণমূলের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাদের উপর অত্যাচার চালিয়েছিল যা রুখে দাঁড়াতেই এই বিজেপি দলীয় কার্যালয় তারা করেছে বলে জানায়**।

**যদিও সিটু নেতা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কিশোর ঘটক জানান সোমবার রাত্রে তারা দলীয় কার্যালয় দখলের বিষয়ে জানতে পেরে বিজেপির নেতৃস্থানীয়দের সাথে কথা বলে ওই দলীয় কার্যালয় থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানান পাশাপাশি সেখানে কোনো ক্লাব ঘর করা যাবে না বলেও জানান ঐ সিটু নেতা। তিনি জানান ওই দলীয় কার্যালয় দীর্ঘদিন ধরেই সিটু কর্মী সংগঠন গড়ে তুলেছে সেখানে অন্যায় ভাবে দখল তারা কখনোই বরদাশ্ত করবে না বলেই দাবি করেন কিশোর বাবু তার কথায় এই দলীয় কার্যালয় এখানের শ্রমিকদের সুখ দুঃখের কথা জেনে তাদের দাবি পূরণ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড সেখানে সম্পন্ন হতো যা এই দলীয় কার্যালয় দখল করলে সম্ভবপর হবে না বলেই দাবি করেন তিনি। এ বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনের দ্বারস্থ হবার কথা জানিয়েছেন কিশোর বাবু। যদিও বিজেপি শীর্ষ স্তরের নেতারা, এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন**।▪◼👇🏻👇🏻

এছাড়াও চেক করুন

জল বাঁচান, জীবন বাঁচান স্লোগানে পা মেলাল খুদে পড়ুয়ার

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঝাড়গ্রাম : জল বাঁচান, জীবন বাঁচান স্লোগানে পা মেলাল খুদে পড়ুয়ার। এদিন ঝাড়গ্রাম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.