Breaking News
Home >> Breaking News >> ফাল্গুন সংক্রান্তিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে গ্রামবাংলার মিঠে পুজো “ঘেঁটু পুজো”

ফাল্গুন সংক্রান্তিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে গ্রামবাংলার মিঠে পুজো “ঘেঁটু পুজো”

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ, হাওড়া:

ফাল্গুন মাসের সংক্রান্তিতে গ্রাম বাংলার পল্লীসমাজ মেতে উঠতে চলেছে আঞ্চলিক অনুষ্ঠান ঘেঁটু পুজায়। প্রত্যন্ত গ্রাম ছাড়িয়ে শহর উপকুলেও এই অনুষ্ঠানের আজ ছোঁয়া মিলবে।

ফি বছরের রীতি মেনে শুক্রবার বাংলার ঘরে-ঘরে ফাল্গুন সংক্রান্তিতে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ঘেঁটু উৎসব। শহর ছাড়িয়ে গ্রামের পল্লি সমাজে ঘেঁটু পুজা ও ঘেঁটু গানের চলন এই দিনটাতে দেখা মেলে। ভোর বেলায় রাস্তার তিন মাথা মোড়ে মাটির খোলায় ঘেঁটু ফুল, চাল, সিঁদুর, বাতাসা, গোবড় রেখে বয়স্ক ঠাকুরন পুজো করেন। পুজো শেষ হলে মাটির খোলাটাকে ভেঙ্গে ফেলা হয়। পুজোর সিঁদুর, গোবর, মাটির খোলা মঙ্গলের উদ্দেশ্যে বাড়ির চৌকাঠে লাগানো হয়।

কথিত আছে ঘেঁটু পুজা একপ্রকার শিব দুর্গার পুজো। ভক্তি ভরে বাড়ির বয়স্করা এই পুজোয় ব্রত হয়। বিকেল শেষে সন্ধ্যে নামলে এলাকার মানুষজন ছোট ছেলে মেয়েদের শিব দুর্গা সাজিয়ে গ্রামের প্রতিটা বাড়িতে ঘোড়ায়। ঘেঁটু পুজা বছরের পর বছর ধরে হাওড়া, হুগলি ও দুই মেদিনীপুর জেলার মানুষজন ফাল্গুন সংক্রান্তিতে ব্রত পালন করে আসছে। এই পুজোয় সব থেকে বেশি ছোটরা আপ্লুত হয়ে।

তাদের বিয়ের সাজে সাজানো হয়। মাথায় ফুল, পায়ে আলতা পরানো, কপালে সিঁদুরের ফোঁটা, সঙ্গে মা কাকিমার বিয়ের কাপড় পড়ানো হয়। ছেলেদের বরের বেশে সাজানো হয়। হাতে ছোট থালায় থাকে ঘেঁটু ফুল সঙ্গে ছোট ছোট ঠাকুর। সুর করে সকলে মিলে গান ধরে,
“ঘেঁটু গাই ঘেঁটু গাই গৃহস্থ বাড়ি,
এক কাঠা চাল দাও কুমড়োর বাড়ি।
যে দেবে থালা থালা তার হবে কোঠা-বালা,
যে দেবে মুঠো মুঠো তার হবে হাত ঠুটো,
যে দেবে এক পলা তেল তার হবে সোনার দেল”
এইভাবে ঘেঁটুর গান একসাথে পাঠ করে। পুরনো সংস্কৃতির রীতিকথা ঘেঁটু পুজো বাড়ির চৌকাঠে এবাবেই ফিরে আসে।

চিত্রঃ সংগৃহীত।

এছাড়াও চেক করুন

জমি দখল করতে রাতের অন্ধকারে বোমা মারার অভিযোগ তৃনমূল নেতার বিরুদ্ধে

মনিরুল হক, স্টিং নিউজ, কোচবিহার: নিজেদের জমি ফিরে পাবার জন্য এলাকায় রাতের অন্ধকারে বোমা মারার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.