Breaking News
Home >> Breaking News >> ‘অপরাধী ‘ গানে এপার বাংলার বুকেও পাড় ভাঙছে

‘অপরাধী ‘ গানে এপার বাংলার বুকেও পাড় ভাঙছে

লিখেছেন শুভায়ুর রহমান

পাড়ার একটি দোকানে বাজছিল গানটি।সকাল ৯ টা নাগাদ অন্যদিনের মতো অফিসে বের হয়েছিলেন অনুরাগ শা (নাম পরিবর্তিত)। কলকাতার আইটি সেক্টরে কর্মরত বছর সাতাশের যুবকের বুকে ছ্যাঁত করে উঠেছিল।দ্রুত গতিতে হেঁটে যাওয়ার তাড়া উবে গিয়েছিল করুণ গানের সুর।পা থেকে মাথা পর্যন্ত খানিক কেঁপে উঠেছিল।মিনিট ২-৩ দাঁড়িয়ে হৃদয়ঙ্গম করেছিলেন গানটি।সেদিনের ছেড়ে যাওয়া প্রিয় মানুষের সাথে হুবহু মিল খুঁজে পায় অনুরাগ। শেষবার সমাপ্তি তাকে কথা দিয়েও কথা রাখেনি।অন্যের হয়ে গিয়েছিল কয়েক দিনের মধ্যে।প্রায় তিন মাস হয়ে যাওয়ার পরও সেই স্মৃতি,সেই ঘোর,সেই কথার মালা গাঁথা,সেই শত শত স্বপ্নের ক্যানভাস ছেড়ে বেরিয়ে আসতে পারেনি অনুরাগ। বাড়ি ফিরে রাতে ইউটিউবে সার্চ করে শুনেই তার ভালোলাগার মানুষের হোয়াটস এপে পাঠায় ” ও মাইয়া তুই অপরাধী রে…।কিছু পরেই উত্তর দিয়েছিল মেয়েটি জানায় অনুরাগ।এই রকমই গানে মজেছে এপার বাংলার যুবক যুবতীরা।

মাঝে কাঁটাতার থাকলেও বাংলা গানের সুরে মন নাচছে, হৃদয়ে জোয়ার বয়ে দিচ্ছে বাংলাদেশের শিল্পী আরমান আলিফের গাওয়া গান ” ও মাইয়া তুই অপরাধী রে।” কলকাতার আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী রুহি আক্তার বানু (নাম পরিবর্তিত) জানাচ্ছেন” কি বলব।আমরা সবাই কাউকে না কাউকে ভালোবাসি। কিন্তু মনের মানুষ চলে গেলে কতখানি কষ্ট হয় তা বুঝি।ইদানীং বাংলাদেশের গান টি শুনে মনকে সান্ত্বনা দিই।রাতে ও সকালে সেই গানের জাদুতে আমি মোহিত হয়ে যায়” রোজ রাইতে আমায় জোনাক পোকা কানে কানে কয়, তুই দেইখ্যা ল রে ত্রিভুবনে কেউ তো কারু নয়”! শুনলেই মনে হয় সত্যিই তাই।নিজের জীবনের মূল্যায়ন করি।”ছলছল চোখে বলে গেলেন মেয়েটি।

ঈদের আগেই বাংলা গানের জগতে ইতিহাস সৃষ্টি করতে চলছে আরমান আলিফের অপরাধী গান। গত এপ্রিল মাসের ১৫ তারিখে ঈগল মিউজিকের ব্যানারে মুক্তি পাওয়া, অল্প বাজেটের এই গানটি ইতিমধ্যেই ৬ কোটির বেশি মানুষ দেখেছে। গানটি পিছনে ফেলে দিয়েছে সারা বিশ্ব খ্যাতি বিভিন্ন গায়ক দেরকে। গানটির কথা ও সুর করেছেন শিল্পী আরমান আলিফ নিজেই, এটি শিল্পীর তৃতীয় গান। গানটিতে অভিনয় করেছেন আনান, সুমাইয়া, আনজুম ও তুহিন। বাংলা দেশের পাশাপাশি ভারতেও গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে, সবথেকে বেশি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে পশ্চিমবঙ্গে। গান টি ইতিমধ্যে ইউটিউব গ্লোবাল র‍্যাঙ্কিং এ ১০০ এর মধ্যে অবস্থান করছে। গানটি বাংলা দেশের ক্রিকেটারদের কন্ঠে ব্যাপক ভাবে ভাইরাল হয়। এই গান টিকে নকল করে ইতিমধ্যে প্রচুর গান ইউটিউবএ প্রকাশ পেয়েছে। গানটির ভিউয়ার প্রতিদিন প্রায় ১৫ লক্ষ করে বাড়ছে। মানুষ এই ভাবে গানটি দেখতে থাকলে শুধু বাংলা গানই নয় সারা বিশ্বের যে কোন গানকেই পিছনে ফেলে দেবে অপরাধী গান বলে মত গানপ্রেমীদের।

সেই সাথে উল্লেখযোগ্য বিষয় আরমান আলিফের গানটি বাজারে ছাড়ার পরপরই বাংলাদেশের মেয়ে টুম্পা খান একই গানকে নকল করে গায় ” ও পোলা..ও পোলা তুই অপরাধী রে…।সেই গানেও তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করে।টুম্পা খানের মায়াবী সুরের জাদুতে যুবকদের বুকে ধুকপুকানি শুরু হয়।টুম্পা খানকেও সাদরে গ্রহণ করেন দর্শকমহল। টুম্পা খান গান গেয়ে ফেসবুকে ছাড়তেন। এই গানটিও তিনি গেয়ে ছাড়েন।কাঁধের দুই পাশ দিয়ে ছেড়ে দেওয়া চুল ও গীটার হাতে অনবদ্য হয়ে ওঠেন।’ ও পোলা ও পোলা তুই অপরাধী রে..। টানটিই সবার মন হরণ করে নেয়।তিনি বাংলাদেশের সেলিব্রিটির তালিকায় চলে এসেছেন।বাংলাদেশের মিডিয়া হাউসগুলিতে চলছে টুম্পা খানের সাক্ষাতকার, বিশেষ অনুষ্ঠান।সেই সাথে অপরাধী গানের হিন্দী ভার্সনও প্রকাশ পেয়েছে।গান পাগল বাঙালীর একেবারে অন্তরে ঢুকে গিয়েছে মোহময়ী সুর।ওপার বাংলা ছাড়িয়ে এদেশেও টগবগিয়ে চলছে অপরাধী গান।

তবে অপরাধী অনুকরণে যে গানই হোক গোগ্রাসে গিলছে মানুষ। আর টুম্পা খানের ‘ ও পোলা থেকে শুরু করে হিন্দী ভার্সন সব কিছুর উৎস ই হচ্ছে আরমান আলিফের কন্ঠের গান ” ও মাইয়া তুই অপরাধী রে…।”গান শুনে পুরানো স্মৃতি রোমন্থন করছেন প্রেমিক প্রেমিকারা।আরো একবার ভিতরটা মোচড় দেয়।সবার অজান্তে বয়ে চলে প্রেমের নির্যাসে এখন গানটিই হয়ত সান্ত্বনা কারো কারো কাছে।হৃদয়েত তরঙ্গে ভেলা ভাসাতে মন চাইছে কারও কাছে।পাড় ভাঙা উচ্ছ্বাসে, ফেনিল স্রোতের প্রতিকূলে কানে হেডফোন গুঁজে দিনকে দিন এগিয়ে যাচ্ছে ” ও মাইয়া তুই অপরাধী রে” গান।আকাশ বাতাসের সাথে মন হারিয়ে যায়। ফিরে না পাওয়ার তাগিদে গড়ে ওঠা গানের মোহে বিভোর হয়ে আড়চোখে এদিক ওদিক অচেনা ভিড়ে চেনা মুখের সন্ধানও করছে কেউবা।

loading...

এছাড়াও চেক করুন

অল্পের জন্য রক্ষা পেলো যাত্রীবাহী জাহাজ

স্টিং নিউজ সার্ভিসঃ অল্পের জন্য রক্ষা পেলো যাত্রীবাহী জাহাজ। শুক্রবার বিকেল কলকাতা থেকে একটি যাত্রীবাহী …

Leave a Reply

Your email address will not be published.