Breaking News
Home >> Breaking News >> শতাব্দী এক্সপ্রেসের খাবার খেয়ে অসুস্থ বহু যাত্রী, খাবারের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হচ্ছে ল্যাবে

শতাব্দী এক্সপ্রেসের খাবার খেয়ে অসুস্থ বহু যাত্রী, খাবারের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হচ্ছে ল্যাবে

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, হাওড়া: ফের খাবার নিয়ে শিরোনামে শতাব্দী এক্সপ্রেস। রেলে খাবারের মান ও পরিমাণ নিয়ে বেশ কয়েকবার প্রশ্নের সামনে উপনিত হতে হয়েছে কর্তৃপক্ষকে। বেশ কয়েকমাস চুপ থাকার পর আবারো প্রথমশ্রেণীর রেলে খাবারের মান প্রশ্নের সামনে দাঁড় করালো রেলকে।

বড় ঘড়ির কাঁটায় বিকেল ৩টে সবে স্টেশনে ঢুকছে পুরী – হাওড়া শতাব্দী এক্সপ্রেস। স্টেশনে হাজির আইআরসিটিসির গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার দেবাশিষ চন্দ্র। এছাড়া রেলের কয়েকজন কর্তাব্যক্তি। হাজির ব্যাটারি চালিত যান। প্রস্তুত রাখাছিল অ্যাম্বুলেন্স। কিন্তু এতকিছুর তো দরকার ছিল না। শুধুমাত্র ভালো খাবার দিলেই তো এতগুলো মানুষ সমস্যার সম্মুখিন হত না। ট্রেন থেকে নেমে যাত্রীদের এমন প্রশ্ন শুনতে হয়েছে আইআরসিটিসির গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার কেও।

শতাব্দী এক্সপ্রেস পুরী থেকে বুধবার ভোর ৫টা ৪৫ মিনিটে হাওড়া উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও বাধ সাধে ব্রেকফাস্ট খাওয়ার পরেই। যাত্রীদের অভিযোগ, ব্রেকফাস্টের খাবার খাওয়ার পরই কয়েকজন যাত্রী বমি করা শুরু করেন। এরপর আরও কয়েকজনের অবস্থাও একই রকম হতে শুরু করে। শারীরিক অস্বস্তির মাঝে রেলের আধিকারিক দের খোঁজখবর শুরু করে কয়েকজন যাত্রীরা। এদিকে যত সময় গড়িয়েছে অসুস্থ যাত্রীর সংখ্যাও বাড়তে থাকে। প্রত্যেকেরই একই উপসর্গ বমি, পেট ব্যথা সঙ্গে মাথা ধরে থাকা।

যাত্রীদের সন্দেহ গিয়ে পড়ে রেলের দেওয়া খাবারের দিকে। সঙ্গে সঙ্গে কোচ অ্যাটেনডেন্ট এবং টিকেট চেকারদের জানানো হয়। যোগাযোগ করা হয় খড়গপুরে রেলের আধিকারিকদের সঙ্গে।
এই সমস্ত ঘটনার মধ্য দিয়ে সময় অতিক্রান্ত হতে থাকে। এরপর শতাব্দী এক্সপ্রেস খড়গপুর পৌঁছলে অসুস্থ যাত্রীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বাকি কম অসুস্থ যাত্রীদের ও বাকি যাত্রীদের নিয়ে ট্রেন ছেড়ে যায় হাওড়া অভিমুখে।

রেলের পক্ষ থেকে কিছু বলা না হলেও অসুস্থ যাত্রীদের জন্য ব্যবস্থাপনা করা হয়। ব্যাটারি চালিত যানে চাপিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু এমনটি কেন ঘটছে বারেবারে ? যাত্রীদের অভিযোগ শতাব্দী এক্সপ্রেস এর মতো ট্রেনের ভাড়া অন্য এক্সপ্রেস ট্রেনের থেকে দ্বিগুণ। এরপরেও কেন খাবার পরীক্ষা করা হয় না। যদিও আইআরসিটিসির গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার দেবাশিষ চন্দ্র জানান “রিপোর্ট চেয়েছি। আমরা খতিয়ে দেখছি ঠিক কী কারণে এই ঘটনা ঘটল।” তাঁর নির্দেশে যাত্রীদের যে খাবার দেওয়া হয়েছে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সেই নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হচ্ছে, এমনটাই জানান রেলের এক কর্তা।

এ দিন শতাব্দী এক্সপ্রেসের যাত্রীদের চোখেমুখে ছিল আতঙ্কের ছাপ। শরীর যে বইছে না তা চলাফেরা না করতে পারা দেখেই বোঝা গেছে। প্রশ্ন অনেক যাত্রীদের প্রতি এহেন অবহেলা কবে শেষ হবে অভিযোগ রেখেই যাত্রীরা এগিয়ে চলেছে বাড়ি অভিমুখে।

ভিডিও:

loading...

এছাড়াও চেক করুন

কাটোয়ায় প্রথমবার হতে চলেছে আম উৎসব

গৌরনাথ চক্রবর্তী, কাটোয়া: কাটোয়ায় প্রথমবার শুরু হতে চলেছে আম উৎসব। কাটোয়া সাবডিভিশন স্পোর্টস লার্ভাস এ্যাসোসিয়েশনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.