Breaking News
Home >> Breaking News >> মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘৃণ্য চক্রান্তে নেমেছেন: মুকুল রায়

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘৃণ্য চক্রান্তে নেমেছেন: মুকুল রায়

বিশ্বজিৎ সরকার, স্টিংনিউজ করেসপনডেন্ট, দার্জিলিংঃ ৯০ হাজার কোটি টাকার রেলবাজেট পেশ করছি। আর ২৭ লাখ টাকা চুরি করব ? বিচার আদালতে হবে, আসলে আমাকে এবং আমার পরিবারবর্গকে নিয়ে ঘৃণ্য চক্রান্তে নেমেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আমি রেলমন্ত্রীর পদ ছেড়ে আসার পর কেন্দ্রের কংগ্রেস সরকার সব তদন্ত করেছে। কিছুই পায়নি

কীভাবে মুকুল রায়কে আটকে দেওয়া যায় তার চক্রান্ত তৈরি হচ্ছে। কারণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজনৈতিকভাবে মুকুল রায়কে ভয় পান। তাই চক্রান্ত করা হচ্ছে। আমি রেলমন্ত্রী হিসেবে ৯০ হাজার কোটি টাকার রেলবাজেট পেশ করছি। আর ২৭ লাখ টাকা চুরি করব ? এর বিচার আদালতে হবে।” শ্যালকের বিরুদ্ধে রেলে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতারণার অভিযোগ ও গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে এদিন একথা বললেন মুকুল রায়।

টাকা নিয়ে রেলে চাকরি দেওয়ার নাম করে একাধিক যুবক যুবতিকে প্রতারিত করার অভিযোগে এদিন দিল্লি থেকে মুকুল রায়ের শ্যালক সৃজন রায়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উত্তর চব্বিশ পরগনার বীজপুর থানার পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে।

২০১২ সালে আমি রেলমন্ত্রী ছিলাম। তখন ৯টা অভিযোগ হয়েছে। রেলে চাকরি দেওয়ার নাম করে নাকি ওই ৯ প্রার্থীর প্রত্যেকের কাছ থেকে তিন লাখ টাকা করে নেওয়া হয়েছে। এটা চক্রান্ত। তাও ঘটনাটি ২০১২ সালের। ২০১৮ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রাক্কালে এসে এসব করা হচ্ছে। আসলে আমাকে এবং আমার পরিবারবর্গকে নিয়ে ঘৃণ্য চক্রান্তে নেমেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, রাজনীতির ইতিহাস কোনও দিন কাউকে ক্ষমা করে না। আমাদের হাতেও তো ক্ষমতা আছে। আমরা যদি উত্তরপ্রদেশ,বিহারের মতো ভিনরাজ্যে গিয়ে একটা মামলা করি ? এটা কী রাজনৈতিক লড়াই ? রাজনীতির লড়াই ময়দানে লড়ুন। ক্ষমতা থাকলে ময়দানে লড়ে প্রমাণ করুন। যেহেতু আপনি পরাজিত হবেন। তাই এসব চক্রান্ত তৈরি করছেন। তবে রাজনৈতিকভাবে এইসব চক্রান্তের মোকাবিলা আমি করব। আবারও বলছি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভয় পেয়েছেন।”

তিনি বলেন, “রেলের চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়ার যে অভিযোগ উঠছে তা কোনও কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করা হোক। CBI বা কোনও স্বাধীন তদন্তকারী সংস্থা তদন্ত করুন। আমি জড়িত আছি প্রমাণ করতে পারলে যা শাস্তি হবে মাথা পেতে নেব।”

সারদার প্রসঙ্গও টেনেছেন মুকুলবাবু। বলেন, “তাহলে তো আরও অনেক বিষয় তুলে আনতে হয়। কার নির্দেশে ভারততীর্থ সারদাকে দেওয়া হয়েছিল? কোন অফিসার বিষয়টি নিয়ে তদবির করেছিলেন? এসব প্রশ্নও তো উঠবে।” প্রসঙ্গত রেলমন্ত্রক তৃণমূল কংগ্রেসের হাতে থাকাকালীন ভারততীর্থ নামাঙ্কিত IRCTC-র ভ্রমণ প্রকল্পের এজেন্ট হিসেবে সারদা টুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসকে নিযুক্ত করা হয়েছিল। অভিযোগ উঠছিল, সেক্ষেত্রে কোনও টেন্ডার ডাকা হয়নি। উপরন্তু এক্ষেত্রে সারদা গোষ্ঠীর পর্যটন সংস্থাটির কাছ থেকে জামানত (গ্যারান্টি) হিসেবে এক পয়সাও নেওয়া হয়নি।

loading...

এছাড়াও চেক করুন

কৃষ্ণনগরে বাংলা সিনেমার ‘ফিদা’র নায়ক-নায়িকা যশ ও সঞ্জনাকে দেখতে উপচে পড়লো ভিড়

অর্ণব মজুমদার, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, কৃষ্ণনগর, নদিয়া: বুধবার নদিয়ার কৃষ্ণনগর বিগ বাজার এসভিএফ  সিনেমা হলে বাংলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.