Breaking News
Home >> Breaking News >> কেউ পালালো দোকান বন্ধ করে, আবার কেউ পড়ল পায়ে, আজব ঘটনা ভগবানপুরে!

কেউ পালালো দোকান বন্ধ করে, আবার কেউ পড়ল পায়ে, আজব ঘটনা ভগবানপুরে!


রাজ্যে সারের কালোবাজির অভিযোগ উঠেছিল। সেই সাথে সার দোকানগুলির অনিয়মের একাধিক অভিযোগ জমা হয়েছিল কৃষি দপ্তরে।অভিযোগ গুলি খতিয়ে দেখতে রাজ্যের অন্যান্য জেলার পাশাপাশি পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় সার দোকানে অভিযান চালয় কৃষি দপ্তরের আধিকারিকরা। ইউরিয়া  সারের সরকারি দাম ৬ টাকা, বিক্রেতারা কৃষকের কাছ থেকে ১০ টাকা দামে বিক্রির অভিযোগ সহ, অনুমতি ছাড়াই বিভিন্ন দোকানে নিয়ম বহিভুতভাবে মাছের খাবার, কৃষি ঔষধ বিক্রির অভিযোগে জেলায় বেশ কয়েকটি সারের দোকানে শোকজের নোটিস  দেওয়া হয়েছিল।

আমাদের জেলা কৃষি নির্ভর জেলা। জেলায় কৃষি যেমন ধান, পান, সব্জি চাষ হয়ে থাকে তেমনি, ভগভানপুর,কাঁথি ও নন্দকুমারে বিশাল এলাকা জুড়ে মাছের চাষ হয়ে থাকে। নিয়ম মেনেই ঔষধ দেওয়া না হলে যেকোন সময়ে বড়সড় বিপর্যয়  ঘটতে পারে। তাই জেলার পাশাপাশি ব্লক স্তরের কৃষি আধিকারিকরা ব্লকে ব্লকে সার দোকানে অভিযান শুরু করেছে। গতকাল সন্ধ্যায় পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভগবানপুর – ব্লকের কৃষি আধিকারিক শক্তিপদ মঙ্গলের নেত্রিত্বে ৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল ব্লকের ইয়াশপুর এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানের খবর পেয়ে অনেকেই দোকানে তালা দিয়ে তড়িহড়ি করে পালায়। আবার যারা তা করতে পারেনি তারা ধরল আধিকারিকদের পা।
ভগবানপুর -১ ব্লকের কৃষি আধিকারিক শক্তিপদ মঙ্গল জানান, এলাকার মানুষ দীর্ঘদিন ধরে সার দোকানদারদের কালোবাজারির অভিযোগ জানিয়েছিলেন।  সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখিতেই অভিযান। এলাকার ৫ টি দোকানে নিয়ম বহিভুত ভাবে সার বিক্রি করার জন্য শোকজের নোটিস  দেওয়া হয়েছে। সেই সাথে সার দোকানের মালিকরা যাতে কোনভাবে অসৎ উপায়ে সার বিক্রি করতে না পারে তার জন্য এলাকার মানুষদের সদা সতর্ক থাকার আহবান  জানানো হয়েছে।

Check Also

শেষ দিনে হলদিয়া মেলায় বাজিমাত করলেন বিখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী আশা ভোঁশলে

Leave a Reply

Your email address will not be published.