Breaking News
Home >> Breaking News >> অবাক পানওয়ালা উত্তর দিনাজপুরে

অবাক পানওয়ালা উত্তর দিনাজপুরে

পিয়া গুপ্তা, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, উত্তর দিনাজপুর: ফেলে দেওয়া ধামকল ও ব্লেড কুড়িয়ে এনে তার মধ্যে নিপুন হাতের দক্ষতার একের পড় এক বিজ্ঞানের মডেল ও দেব দেবীর মূর্তি তৈরি করে নয়া নজির গড়ে তুলেছেন এক পানের দোকানদার। আর তার তৈরী এই মডেল তৈরি এখন ভিড় করছে এলাকার পড়ুয়া থেকে সাধারন মানুষরা।

প্রথমে দেখলে মনে হবে এটি আর পাঁচটা পানের দোকানের মতো একটি দোকান যেখানে সাধারন মানুষরা তাদের প্রয়োজনে শুধু মাত্র পান খেতে। কিন্তু তা শুধু নয় উত্তর দিনাজপুর জেলায় তরঙ্গপুরের সুশীল আইনের পানের দোকান হলেও এই দোকানের আন্তরালে রয়েছে তার এক রহস্যময় সৃষ্টি। যা আজ ইতিমধ্যে সারা ফেলে দিয়েছে সকলের কাছে। কি সেই সৃষ্টি তা জানতে দোকানে গেলে দেখা গেল পানের দোকানের ফাঁকে ফাকে সুশীল বাবু আপন মনে একের পড় এক বিজ্ঞানের মডেল থেকে বিভিন্ন দেব দেবীর মূতি তৈরি করে চলছেন ফেলে দেওয়া থামকল ও ব্লডের টুকরো দিয়ে।

শুধু তাই নয় তার দোকানের পাশে যেহেতু হাইস্কুল, প্রাইমারি স্কুল ও প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থাকায় বহু ছাত্র ছাত্রী তার দোকানে আসলে তিনি নিজের উদ্যেগেই বিঙ্গানের মডেলগুলি বুঝিয়ে দিয়ে কোন কোন সময়য় শিক্ষকের ও ভূমিকা পালন করেন। তিনি নিজে বিজ্ঞান নিয়ে পড়ায় বিজ্ঞান বিষয়ে তার আগ্রহ সব সময়ে একটা আলাদা মাত্রায় থাকে তার মানুষের নরকঙ্কাল এর মডেল বানিয়ে তার দোকানে ঝুলিয়ে রেখে দিয়ে বিভিন্ন সময় এ সব ব্যাপারে বিভিন্ন ছাত্র ছাত্রী দোকানে এনে বুঝিয়ে দেন। যা পরক্ষে তিনি শিক্ষকতার ভুমিকা পালন করে থাকেন। সুশীল বাবু জানান ছোট বেলা থেকেই তার শখ ছিল কোন কেনা জিনিস দিয়ে নয়য় ফেলে দেওয়া জিনিস কুড়িয়ে এনে তার মধ্যে তার নিপুন হাতের ছোয়ার কিছু সৃষ্টি করার আর তাই তিনি বছরের পড় বছর ধরে পানের দোকানের ফাকে ফাকে দোকানে বসে একের পড় এক সৃষ্টি করে চলেছে। কখনো লোকনাথ ঠাকুর কখনো কালি ঠাকুর কখনো রাধাকৃষন সহ বিভিন্ন দেব দেবীর মূতি তো কখনো বিঙ্গানের বিভিন্ন ধরনের মডেল।

আগামিতে সুশীল বাবুর ইচ্ছা ভারতের প্রধান মন্ত্রী থেকে রাষ্টপতি এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানাজির প্রতিকৃতি বানিয়ে তাদের কাছে গিয়ে উপহার দেওয়া। তিনি জানান একমাত্র পানের দোকানের উপড়ে ভরসা করে তার রুটি রুজি আয় বলতে সামান্য। বহু কষ্টের মধ্যে দিয়ে তাকে চলতে হয়। তাই সেগুলি ভুলে থাকার জন্য এ তার পানের দোকানেই দোকানদারি করার পাশাপাশি কোন কেনা জিনিস দিয়ে নয় ফেলে দেওয়া জিনিস কুডিয়ে এনে একের পড় এক সৃষ্টি করে চলছেন নতুন নতুন জিনিস, তিনি বলেন তার তৈরি বিভিন্ন মডেল যেমন কোচবিহারে গিয়েছে তেমন ই কলকাতা সহহ বিভিন্ন রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় গেছে।

এদিকে সুশীল বাবুর এই ধরনের অনবদ্য প্র‍য়াস কে সাধুবাদ জানিয়েছে এলাকার বাসিন্দারা। তাদের বক্তব্য সুশীল বাবুর এই প্রয়াস যাতে বিভিন্ন জায়গায় স্থান পায় ও মুল্য পায় তার জন্য উদ্দ্যেগ নেওয়া দরকার। শুধু তাই নয় সুশীল বাবু যেভাবে পানের দোকানের সামনে ফেলে দেওয়া জিনিস কুড়িয়ে একের পরর এক মডেল বানিয়ে চলছেন শুধু নয় বিজ্ঞানের মডেল বনিয়ে সময় পেলে সেই মড়েল কে এলাকার ছাত্র ছাত্রী কে বুঝিয়ে যে ভাবে পরক্ষে শিক্ষকতার ভুমিকা পালন করছে তা সত্যি ই প্রশংসা যোগ্য। এই ধরনের উদ্দ্যেগে অন্যদের ও প্রেরনা জুগাবে বলে তিনি জানান।

Check Also

বিধাননগরে অনুষ্ঠিত হল দার্জিলিং জেলা মহিলা তৃণমূল কংগ্রেস ২নং ফাঁসিদেওয়া ব্লক সম্মেলন

বিশ্বজিৎ সরকার, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, দার্জিলিং: শিলিগুড়ির মহকুমার ফাঁসিদেওয়া ব্লকের বিধাননগরে অনুষ্ঠিত হল দার্জিলিং জেলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.