Breaking News
Home >> Breaking News >> গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার স্বামী,শশুর ও শাশুড়ি

গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার স্বামী,শশুর ও শাশুড়ি

কমল দত্ত, নদিয়া: নদিয়ার চাকদা থানার স্যান্যালচর বাবলাতলায় এক গৃহবধূকে হত্যার দায়ে গ্রেপ্তার স্বামী, শশুর,ননদাই।২০১৪ সালের ২১শে এপ্রিল  শিমুরালীর বাসিন্দা সুশান্ত মোহন্ত এর একমাত্র কন্যা সোমার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল চাকদা স্যান্যালচরের বাসিন্দা আনন্দ সরকারের একমাত্র পুত্র পুলক ওরফে রবির। সোমার শশুর বাড়ীর দাবী মত যৌতুক হিসেবে ছেলেকে নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা সহ সোনার কিছু গহনাও দেওয়া হয়।।বিয়ের কিছুদিন পর সোমার একটি কন্যা সন্তান হবার পর একটি পুত্র সন্তানো হয়।মেয়ের বাবার অভিযোগ তার মেয়ে সোমাকে তার শশুর বাড়িতে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন চালাত ।মাঝে মাঝে এখবর সোমার বাপের বাড়িতে গেলে তারা মেয়েকে মানিয়ে নিয়ে শ্বশুর বাড়িতে মিলেমিশে থাকার কথা বলত।সোমা বাপের বাড়ির কথা শুনে সংসার করতে থাকে।অবশেষে গতকাল গভীর রাতে হঠাৎ সোমার শশুর তার বাপের বাড়িতে ফোন করে বলে, ” আপনার মেয়ে গলায় দড়ি দিয়েছে”। এই ঘটনার খবর শুনে সোমার বাবা কয়েকজন পাড়ার প্রতিবেশীকে নিয়ে অভিযুক্ত জামাই পুলক সরকারের বাড়িতে গিয়ে দেখে তার মেয়ে ঘরে নেই।শ্বশুর বাড়ি থেকে বলা হয় সোমাকে  চাকদা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।সোমার বাপের বাড়ির লোকজন  হাসপাতালে গিয়ে দেখেন সোমার নিথর দেহ পড়ে আছে। তাকে চিকিৎসকেরা দেখার পর মৃত বলে ঘোষনা করে।মৃতার বাবা সুশান্ত মোহন্তের আরো অভিযোগ অভিযুক্ত জামাই পুলিশে কর্মরত।রাতে  সোমাকে ওরা গলা টিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে।সোমবার চাকদা থানার পুলিশ মৃত সোমা সরকার( মোহন্ত) এর বাবা সুশান্ত মোহন্তের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ সোমার স্বামী পুলক সরকার,শশুর আনন্দ সরকার ও শাশুড়ি শিবানী সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে বলে জানা গেছে।অন্যদিকে এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে মৃত সোমার ননদাই শংকর বিশ্বাস পলাতক,তাকে পুলিশ খুঁজছে।এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ওই এলাকায়।মৃতার পরিবারের পক্ষ থেকে সকল অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি তোলা হয়েছে।

Check Also

বীজপুর থানার উদ্যোগে পালিত হল পথ নিরাপত্তা বিষয়ক শোভাযাত্রা

দেবাশিস রায়: বীজপুর থানার উদ্যোগে ১৯ ফেব্রুয়ারি, সোমবার পালিত হল শোভাযাত্রা। ‘পথ নিরাপত্তা সপ্তাহ’ উদযাপনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.