Breaking News
Home >> Breaking News >> প্রায় দুমাস ধরে দিঘায় ১৪ জন বাংলাদেশি মৎস্যজীবি ঘরে ফিরতে পারছে না

প্রায় দুমাস ধরে দিঘায় ১৪ জন বাংলাদেশি মৎস্যজীবি ঘরে ফিরতে পারছে না

প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, পূর্ব মেদিনীপুর: গত ২২ নভেম্বর থেকে প্রায় দু’মাস দেশে ফিরতে না পেরে কার্যত হতাশায় দিন কাটছে ১৪ জন বাংলাদেশি   মৎস্যজীবি।  সমুদ্রে মাছ ধরতে বেরিয়ে ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল  হয়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ জলে ভাসতে ভাসতে ট্রলারটি ভারতীয় জলসীমার মধ্যে ঢুকে পড়েছিল। দীর্ঘক্ষণ জলে ভেসে থাকার জন্য অসুস্থ হয়ে পড়েন কয়েকজন মৎস্যজীবী।  দিঘায় উপকূল রক্ষীবাহিনী ঐ ট্রলারটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে। সেই থেকেই ওই মৎস্যজীবীরা আটকে রয়েছে দিঘাতে।
প্রায় দু’মাস দেশে ফিরতে না পেরে কার্যত হতাশায় দিন কাটছে ওই সমস্ত মৎস্যজীবিদের। মৎস্যজীবিদের শুরুতে স্থানীয় মৎস্যজীবী সংগঠনের তরফে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল। কিন্তু এখন সেভাবে সাহায্য না মেলায় সঙ্কটের মধ্যে পড়েছেন তাঁরা।  মৎস্যজীবি সংগঠনের উদ্যোগে ইতিমধ্যে বিকল ট্রলারটিকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আইনি ফাঁসে আটকে রয়েছে তাঁদের ঘরেফেরা। ঘরে ফেরার বিষয়ে দুই দেশের প্রশাসনই উদাসীন বলে অভিযোগ তুলেছেন বাংলাদেশী মৎস্যজীবীরা। তাই কবে তাঁরা দেশে ফিরতে পারবেন সে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে তাঁদের মধ্যে। ট্রলারের মাঝি জাকির মাঝি বলেন,” খুব অসহায় লাগছে আমাদের। ঠান্ডা পোশাকও আমাদের নেই। স্থানীয় মৎস্যজীবিরা সাহায্য করলেও, প্রশাসনের তরফে আমাদের জন্য কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। তাই ঘরে কবে ফিরতে পারবো জানা নেই আমাদের।” বাংলাদেশী মৎস্যজীবিদের ঘরে ফেরানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা প্রশাসন নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন কাঁথির অতিরিক্ত পুলিস সুপার ইন্দ্রজিৎ বসু।

এছাড়াও চেক করুন

ব্যারাকপুর কমিশনারেটের ট্রাফিক বিভাগের এক অভিনব উদ্যোগ

সৈকত গাঙ্গুলী,ব্যারাকপুর: গ্রীষ্মকালের চরম দাবদাহের সময় রাস্তায় কাজে বের হওয়া পথচারী ও গাড়ি চালকদের ঠান্ডা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.