Breaking News
Home >> Breaking News >> মারাদনার উৎসবে মাতল তিল্লতম্মা

মারাদনার উৎসবে মাতল তিল্লতম্মা

ঋদ্ধি ভট্টাচার্য, কলকাতা: সব খেলার সেরা বাঙালির তুমি ফুটবল কথাটির মধ্যে যে মধুর সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে তা আবারও প্রমান হয় গাল। গত ১১ থেকে ১৩-ওই ডিসেম্বর কলকাতার বুকে আগমন ঘটেছিল ফুটবল জগতের কিংবদন্তি দিয়েগ মারাদনার। মূলত কলকাতাবাসীদের কাছে এই শিতে এটি একটি বারতি পাওয়া বলাই যেতে পারে।উপছে পরা ভিড় আর তাদের আগ্রহ ছিল সত্যি দেখার মতন। তার প্রথম আগমনের ছেয়েও ছিল আরও বেশি তার দর্শক।তিনি মাদার হউসে যাওয়া ছাড়াও যান শ্রীভুমি,চেতলা অগ্রগামী সহ আরও অনেক যায়গাতেই। তার ফুটবলএর ওপর দক্ষতার ও প্রমান পাওয়া যায় যখন তিনি কদম্বগাছির আদিত্য একাডেমী ঘুরে গেলেন।মারাদোনা শুধু সি বি এস সি পাঠ্যক্রমের অন্তর্গত এই ইংরাজী মাধ্যম বিদ্যালয়েই এলেননা , তিনি নিজে গান গেয়ে , ফুটবল খেলে আর বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের ফুটবলের অনুশীলন করিয়ে এলাকাবাসীর মন জয় করে নিলেন ৷সংবাদ মাধ্যমকে জানানো সময়ের থেকেও বেশ কিছুক্ষণ বাদে বিধায়ক সুজিত বোসের সঙ্গে আদিত্য গ্রুপের অন্তর্গত আদিত্য একাডেমী-র নিজস্ব স্টেডিয়ামে ঢোকেন মারাদোনা ৷মাঠে ঢোকার পরপরই প্রশিক্ষণ প্রার্থী বেশ কিছু পড়ুয়ার সঙ্গে কথা বলে তিনি কতগুলো ফুটবলে লাথি মেরে তা দর্শকাসনে পাঠিয়ে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবক-অভিভাবিকাকুলকে অভিবাদন জানাতে শুরু করেন ৷দর্শকবৃন্দকে অভিবাদন জানানো শেষ হলে তিনি বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের প্রথমে ফুটবল খেলা নিয়ে কিছু পরামর্শ দেন ৷তারপর , মারাদোনা নিজেকে এক দক্ষ কোচের ভূমিকায় নিয়ে এসে আদিত্য স্কুল অব স্পোর্টস-এর প্রশিক্ষণ প্রার্থী ছাত্র-ছাত্রীদের দিকে একে একে ফুটবল ঠেলে দিতে থাকেন ৷আদিত্য স্কুল অব স্পোর্টস-এর প্রশিক্ষণ প্রার্থী বাচ্চারা সেই বলই গোলের দিকে মারতে থাকে ৷পরে বাচ্চাদের ভুল সংশোধন করিয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে তিনি নিজেও গোলমুখে পরপর বেশ কয়েকটা সট নিয়ে বুঝিয়ে দেন , বয়স যাই হোক না কেন; মারাদোনা আছেন মারাদনাই ৷প্রথম দিকে বাচ্চাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে মারাদোনা মাঠ ছেড়ে বেড়িয়ে যান ৷পরে ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী-র নেতৃত্বধীন ফুটবল একাদশের বিপরীতে ফুটবল খেলার উতসাহ নিয়ে দিয়াগো আরমাণ্ড মারাদোনা মাঠে জার্সি পরে চলেও আসেন ৷মাঠে তখন খেলার জন্য উপস্থিত ভারতের কিংবদন্তী ফুটবলার শ্যাম থাপা , বসিরহাট বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস , বাংলা ক্রিকেট টীমের খেলোয়াড় শিবশঙ্কর পাল , মনোজ তিওয়াড়ী সহ আরো অনেকেই ৷যদিও সৌরভ গাঙ্গুলী তখন মাঠে আসেননি ৷এইসময় মারাদোনা মাঠের একপাশে আর্জেন্টিনিয় গানের বাজনার সুরে গান গাইতে এগিয়ে যান ৷ বেশ কিছুটা সময় গান গেয়ে মারাদোনা সস্ত্রীক স্টেডিয়াম ছেড়ে চলে যান ৷প্রসঙ্গতঃ উল্লেখয়োগ্য , মারাদোনা যখন গ্যালারীর দর্শকাসনের দিকে লাথি মেরে ফুটবল ওড়াচ্ছিলেন বা নিজে গোল করছিলেন , তখন দর্শকাসনে বসা ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবক-অভিভাবিকাবৃন্দের উতসাহ ছিল দেখার মতো ৷“দিয়াগো” ” দিয়াগো ” ধ্বনিতে স্টেডিয়ামের গ্যালারী তখন বারংবার মুখরিত হচ্ছিল ৷মারাদোনা মাঠ ছাড়ার পর মাঠে নামেন সৌরভ গাঙ্গুলী ৷মাঠে নেমে বেশ কিছুক্ষণ বড়োদের সঙ্গে ফুটবলও খেলেন সৌরভ ৷

Check Also

জেলা বিজেপি পার্টী অফিসে নেতাজীর জন্মজয়ন্তী পালন

কমল দত্ত, নদিয়া: নেতাজীর ১২১ তম জন্মদিবস পালিত হল সারাদেশে।পাশাপাশি এদিন সকালে নদিয়ার ভারতীয় জনতা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.