Breaking News
Home >> Breaking News >> পাহাড় সমস্যা নিয়ে  পিন্টেল ভিলেজে সর্বদলীয় বৈঠক করল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পাহাড় সমস্যা নিয়ে  পিন্টেল ভিলেজে সর্বদলীয় বৈঠক করল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বিশ্বজিৎ সরকার, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, দার্জিলিং: আজ শিলিগুড়ির অদূরে পিন্টেল ভিলেজে সর্বদলীয় বৈঠক করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তিনি জানান,এই পিন্টেল ভিলেজে বসেই জিটিএ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিলো। এবং পুনরায় এখানে বসেই পাহাড় সমস্যা সমাধান সম্পন্ন হলো।  এদিনের সর্বদলীয় মিটিং এ উপস্থিত ছিলেন সদ্য নির্বাচিত গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা  সভাপতি বিনয় তামাং, সম্পাদক অনীত থাপা,জি এন এল এফ এর নিরজ জিম্বা, কালিম্পং বিধায়ক সরিতা রাই, রাজ্য সভার সাংসদ শান্তা ছেত্রী সহ অন্যান্যরা। এদিন মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানান যে পাহাড় এখন শান্ত হয়েছে। পাহাড় সমস্যা সমাধানে রাজ্য সরকার এগিয়ে এসেছে।পাহাড়ের স্কুলগুলির শিক্ষক শিক্ষিকাদের বকেয়া টাকা, শর্ত সাপেক্ষ দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। এছাড়াও পাহাড়ে আন্দোলনে মৃত ও আহত ব্যক্তিদের পরিজনদের আর্থিক সাহায্যের কথাও ঘোষণা করেন। মৃত ব্যক্তিদের পরিজনের একজনের, সরকারি দপ্তরে চাকুরী দেবার ব্যবস্থা রাজ্য সরকার নেবে বলেও জানান তিনি । এছাড়াও তিনি জানান উন্নয়নের সাথে কোনও সমঝোতা নয়। তাই উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে জিটিএ ও রাজ্য সরকার যৌথ উদ্যোগেই পাহাড়ের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে বলে দাবি করেন। সকলেই একসাথে মিলে উন্নয়নের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে এই অঙ্গীকার বদ্ধ হয়েছে সবাই এমনটাই দাবী করেন তিনি। এবং সবশেষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন যে পরবর্তী বৈঠক কবে হবে সেই বিষয়ে খুব দ্রুতই জানানো হবে বলে জানিয়েছেন। অন্যদিকে পাহাড়ে ট্যুরিজম ফেষ্টিভ্যাল করার দাবী তোলেন, নব নির্বাচিত গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা সভাপতি বিনয় তামাং। সেই অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতির আবেদন জানান তিনি,সেবিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত থাকবার আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানান বিনয় তামাং। এবং বিমল গুরুং প্রসঙ্গে জানান, একটা কেস থেকে রক্ষা পেতে ২ কোটি টাকা খরচ করেছে। বাকি কেস থেকে তো রেহাই পায়নি।এর পাশাপাশি দেশের এতো বড়ো উকিল দিয়ে এতো টাকা খরচ করে সুপ্রিম কোর্ট থেকে রেহাইনামা নিলেন। এই নিয়ে  প্রশ্ন তোলেন বিনয় তামাঙ এতো টাকা কোথা থেকে পেলো বিমল গুরুং। এছাড়াও তিনি এদিন দাবী তোলেন, জঙ্গল মাড়িয়ে নেপাল হয়ে দিল্লী পাড়ি দিয়েছেন বিমল গুরুং। তবে বলাই যায় যে পাহাড়ের এই ক্ষমতা দখলের রাজনীতি মোড়ই কি, পাহাড়ের উন্নয়নের পাশাপাশি, আগামিতে শান্তি ফিরিয়ে আনতে সহায়ক হয়ে উঠবে? এ প্রশ্নের উত্তর পাবার আশায় গোটা দেশ সহ,রাজ্য রাজনী‌তি।

Check Also

​বেআইনি কয়লা আটক করল সিআইএসএফ 

সুকান্ত বাগ্দী, স্টিং নিউজ করোসপডেন্ট, পশ্চিম বর্ধমান: মঙ্গলবার সকালে পশ্চিম বর্ধমান জেলার পান্ডবেশ্বরে শুরু হয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.