Breaking News
Home >> Breaking News >> ​তিন শতাব্দী প্রাচীন খড়িয়প গ্রামের কালীপূজোয় মাতোয়ারা হাওড়া গ্রামীণ এলাকা, দেওয়া হয় শতাধিক ছাগল বলি  

​তিন শতাব্দী প্রাচীন খড়িয়প গ্রামের কালীপূজোয় মাতোয়ারা হাওড়া গ্রামীণ এলাকা, দেওয়া হয় শতাধিক ছাগল বলি  

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, হাওড়া: হাওড়া গ্রামীণ এলাকা খড়িয়প গ্রামে আজ অনুষ্ঠিত হতে চলেছে তিন শতক প্রাচীন খড়িয়প শ্মশান কালীপূজো। মূলত হাওড়া জেলার পুজো হলেও পার্শ্ববর্তী জেলা থেকেও হাজার হাজার মানুষজন আসেন এই পুজোয় অংশ নিতে। 
একসময় মহা শ্মশানে পুজো হলেও শতাব্দী ব্যপি বিশাল মন্দিরে পূজিত হয়ে আসছে শ্মশান কালী। কথিত আছে খড়িয়প গ্রামের বিখ্যাত জমিদার ছিল বসু পরিবার। তাঁদের নেতৃত্বে একসময় পূজিত হয়েছে। তবে বর্তমান সময়ে গ্রামবাসীরা কমিটি গঠন করে পুজোর দায়িত্ব পালন করছে। তন্ত্র মতে সারারাত ব্যাপী পূজিত হয় শ্মশান কালী। বহু মানুষ পূজো দিতে রাতভর জেগে থাকেন। শেষ রাতে শতাধিক ছাগ বলি দেওয়া হয়। 
এই পুজো উপলক্ষে খড়িয়প গ্রামে এখন সাজোসাজো রব। এলাকা মুড়ে দেওয়া হয়েছে আলো ও সুসজ্জিত গেটে। নিরাপত্তার দায়িত্বে সকাল থেকে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। রয়েছে সিভিক ভলেন্টিয়ররা। দুপুর থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয় বাস চলাচল। পরিবর্তে উভয় দিকে এক কিলোমিটার দূর থেকে বাস চলাচল করে। কালী মাকে সোনার অলঙ্কারে সাজানো হয়। তবে নিরাপত্তার জন্য সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো থাকে। পুজো উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলা অনুষ্ঠিত হয়। দূরদূরান্ত থেকে কালীপূজো দেখতে মানুষজন আসেন। মনোরঞ্জনের জন্য বিভিন্ন ধরনের নাগোরদোলা, হরেকরকমের দোকান, জিলিপি পাঁপড়, বাদাম সহ কয়েকশ দোকান। তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে যায় বাঁশের তৈরি ঝুড়ি, কুলো, চুবড়ি সহ বিভিন্ন জিনিসপত্র।
এখানের জাগ্রত পুজোর জন্য বহু মানুষ মানত করা জিনিসপত্র তুলে দেন মন্দিরে। এবারেও তার ব্যতিক্রম কিছু হয়নি। হুগলী থেকে এক ব্যক্তি মানত করা বিশাল মাপের লোহার কড়া নিয়ে এসেছে। যা আনতে আস্ত একটি মেটাডোর ভাড়া করতে হয়েছে। তবে বেশিরভাগ মানুষ ছাগ নিয়ে আসে। বলির পর তা প্রসাদ হিসাবে বাড়িতে নিয়ে যায়। শনিবার রাতে প্রতিমা নিরঞ্জন হবে মন্দির সংলগ্ন বিশালাকার পুকুরে। সেইসঙ্গে থাকবে বাজির খেলা। তবে প্রশাসন কতটা বোমা ফাটানোর অনুমতি দেয় সেটাই বড় প্রশ্ন। বছর শেষে ফিরে আসা খড়িয়প গ্রামের ঐতিহ্যবাহী কালীপুজো নিয়ে নাওয়াখাওয়া ভুলেছে পার্শ্ববর্তী দুই থানা আমতা ও জয়পুর এর হাজার-হাজার মানুষের।    

Check Also

​দেরি করে ঢুকছে সরকারি কর্মীরা সরকারি দফতরে 

বিশ্বজিৎ সরকার, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, দার্জিলিং: আবজ দৃশ্য দেখা গেল শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়া ব্লকের বিধাননগরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.