Breaking News
Home >> Breaking News >>  ডেঙ্গু মোকাবিলায় তৎপর কালিয়াগঞ্জ পৌরসভা

 ডেঙ্গু মোকাবিলায় তৎপর কালিয়াগঞ্জ পৌরসভা

পিয়া গুপ্তা ,স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট,উত্তর দিনাজপুরঃ অজানা জ্বর কিম্বা ডেঙ্গি আক্রান্ত নিয়ে উদ্বেগের শেষ নেই এই মুহুর্তে রাজ্য সরকার অথবা রাজ্যের মানুষের । এই রোগে আক্রান্ত প্রায় হাজার হাজার মানুষ , অনেক মানুষের মৃত্যুও হয়েছে । অনেক অনেক জায়গায় আতঙ্কে গ্রাম ছেড়েছে মানুষ । অজানা জ্বর ও মশা বাহিত রোগের প্রকোপ কমাতে সরকার কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়েছে । মশা তাড়াতে যা যা করনিয় তা করছে 

ডেঙ্গু নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে স্বাস্থ্য দপ্তরের পাশাপাশি নেমে পড়েছে কালিয়াগঞ্জ পৌরসভা।পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ব্লিচিং পাউডার ,মশা মারার কামান দাগা থেকে শুরু করে মশা মারার তেল ছেটানোর কাজও শুরু হয়ে গেছে পৌরপতির তদারকিতে।
সারা রাজ্যের মানুষ এখোন মশা বাহিতো ডেঙ্গু রোগের আতঙ্কে আতঙ্কিত। 

যাতে কোন প্রকার কেউ আর নতুন করে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত না হয় সেই রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। সেই মোতায়াবিক উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর পক্ষ থেকে জেলার প্রতিটি পৌরসভা ও ব্লক প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে তাদের নিজ নিজ এলাকার মানুষদের ডেঙ্গু নিয়ে সচেতন করা তার সাথে এলাকায় মশা মারার কামানদাগা থেকে শুরু করে মশা মারার তেল ছিটানো হয়। যাতে এই জেলার কোন মানুষ মশা বাহিতো ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত না হয়। সেই কারনে কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার পক্ষ থেকে পৌরপতি কার্তিক পাল নিজে উপস্থিত থেকে পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ব্লিচিং পাউডার,মশা মারার কামান দাগা থেকে শুরু করে মশা মারার তেল ছেটানোর কাজে তদারকি করছে। যাতে তার পৌর এলাকায় কোন প্রকার ডেঙ্গু থাবা না বসাতে পারে।  কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার যাতে  ১৭টি ওয়ার্ড ডেঙ্গু থেকে নিরাময় থাকে।

পৌর প্রধান কার্তিক পাল জানান, রাজ্যের অনেক জেলাতে ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্ক দেখা গেলেও এই জেলায় এখনো তা দেখা দেয়নি বলে দাবী স্বাস্থ্য দপ্তরের ।

এই বছর তেমন কেউ যদিও আক্রান্ত নেই ।জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের সূত্রে জানা গেছে 2014 সালে জেলায় মাত্র 16 জনের ডেঙ্গু হয়েছিল ।2015 সালে সে সংখ্যা বেড়ে দাঁডায 45।আর 2016 সালে সেই সংখ্যাটি একলাফে বেড়ে হয় 267। এই বার যদিও তেমন কোনো রিপোর্ট পাওয়া যায় নি তবে ডেঙ্গু রুখতে জেলা প্রশাসন বদ্ধ পরিকর।
তাই এই ডেঙ্গু রুখতে আগাম সচেতন করা হচ্ছে সকল কে তার পাশাপাশি পৌর এলকায় প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে 
ব্লিচিং পাউডার, মশা মারার কামানদাগা থেকে শুরু করে মশা মারার তেল ছিটানোর কাজ করা হচ্ছে ।
 যাতে পৌর এলাকার কোন ব্যক্তি এই রোগে আক্রান্ত না হয় সেই কারনে পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ব্লিচিং পাউডার,মশা মারার কামানদাগার পাশাপাশি  মহিলা স্বাস্থ্য কর্মিরা প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষদের সচেতন করছে।

Check Also

বোলপুরের মহিদাপুর গ্রামে পথ দুর্ঘটনায় মৃত এক

দেবস্মিতা চ্যাটার্জ্জী, বীরভূম: বোলপুরের মহিদাপুরে মোটর বাইকের ধাক্কায় মৃত্য হল একজনের, আরেকজন গুরুতর আহত অবস্থায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.