Breaking News
Home >> Breaking News >> ​৫০১টি হাতের কালী প্রতিমা নিউ বিদ্রোহী ক্লাবের                 

​৫০১টি হাতের কালী প্রতিমা নিউ বিদ্রোহী ক্লাবের                 

পার্থ দাস বৈরাগ্য, স্টিং নিউজ করসপডেন্ট, নদিয়াঃ তেহট্ট থানার চাঁদেরঘাট গ্রামে আলোর উৎসবে মেতে উটেছে গোটা গ্রামের বাসিন্দারা। জলঙ্গী নদী দিয়ে ঘেরা এই গ্রামের আর্থ-সামাজিক অবস্থা যথেষ্ট ভালো। অতীত ঐতিহ্য মেনেই এবারও এই চাঁদেরঘাট গ্রামে অমাবশ্যার কালীপুজোর রাতে চাঁদের আলো না থাকলেও পুজো কমিটি গুলোর আলোর  আলোকিত হয়ে থাকবে সারা গ্রাম। এখানে চন্দন নগরের আলো থাকছে, থাকছে বিভিন্ন রকমের থিমের প্যাণ্ডেল। এর পাশাপাশি মানুষকে আনন্দ দিতে ধর্মীয়, সামাজিক ও বিচিত্র ধরনের  ঘটনার থিম তুলে ধরা হয়েছে। এবার ছোট বড়ো মিলিয়ে চাঁদেরঘাট গ্রামে সব পাড়াতে প্রায় চল্লিশ টি কালী পুজো হচ্ছে।  এখানে নিউ বিদ্রোহী ক্লাবের পুজো কমিটির  ৫০১ টি হাতের কালী মূর্তি দেখার জন্য মানুষের মনে উন্মাদনা তৈরি হয়েছে। তাছাড়া এই কমিটির সুদৃশ্য পুজো মন্ডপ, আলোক সজ্জা, থিম এবারেও দর্শক দের নজর কাড়বে। নিউ প্রতিবাদ ক্লাবের এবারের থিম “রামের বনবাস” এটি দর্শকের মনে উৎসাহ বারিয়েছে। হিরোজ সংঘ,সুভাষ লাইব্রেরি, আপনজন ক্লাব, ঐক্যতান ক্লাব, বুলেট ক্লাব, শহীদ সতীশ সর্দার ক্লাব, প্রগতি সংঘ, অগ্রগামী সংঘ এই সব ক্লাব গুলোর পুজো মন্ডপ ও আলোক সজ্জা দর্শকের নজর কারবে বলে কমিটি গুলির ধারনা। সবচেয়ে পুরাতন ক্লাব যুব সংস্থার পুজো মন্ডপ ও আলোক সজ্জা এবং থিম না দেখলে চাঁদের ঘাটের পুজো দেখার সম্পূর্ণতা হবে না বলে অনেকে বাসিদের ধারনা। এই গ্রামের যে সব মানুষ চাকরির জন্য গ্রামের বাইরে থাকেন, তারাও এই পুজোতে চাঁদেরঘাটে ফিরে আসেন আনন্দে উৎসবে মেতে ওঠেন গ্রামে। প্রতিবেশী গ্রামের হাজার হাজার মানুষের আগমনে কলোরিত হয়ে ওঠে কালী পুজোর কদিন। এবার প্রথম চাঁদেরঘাট শহীদ সতিশ সর্দার  স্মৃতি রক্ষা সমিতির সম্পাদক তুহিন কুমার মণ্ডলের উদ্দ্যোগে কালীপুজো হচ্ছে চাঁদেরঘাট  শহীদ সতীশ সর্দার স্মৃতিরক্ষা  ভবনে।চাঁদেরঘাট গ্রামের বাসিন্দা শিক্ষক  বিশ্বজিৎ মন্ডল জানান, শান্তিপূর্ন পরিবেশে প্রশাসনের সব রকমের সহযোগিতা তে কালীপুজোর  উৎসবে আনন্দে মাতোয়ারা হয়ে যায় আট থেকে আশি বছরের মানুষ। সঞ্জয় সাহা জানান, দূর্গা পুজা গ্রাম বাংলার শ্রেষ্ঠ পুজা হলেও  আমাদের এখানে কালী পুজা শ্রেষ্ঠ পুজা বলে আমরা মনে করি। শনিবার ভাইফোঁটার দিন নিউ প্রতিবাদ ক্লাবের উদ্যোগে জলঙ্গী নদীতে নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতা হবে। নদীর দুধারে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে এই প্রতিযোগিতা। আগামী রবিবার বিভিন্ন ধরনের শোভাযাত্রা সহকারে জলঙ্গী নদীতে নৌকা করে প্রতিমা নিয়ে নিরঞ্জন করা হবে। এবং নানা রকম আতশ বাজির রোশনায়ের মধ্যদিয়ে সমাপ্তি ঘটবে মাতৃ আরাধনার।

Check Also

পুকুর থেকে উদ্ধার প্রৌঢ়ের দেহ

প্রসূন ব্যানার্জী,প্রতিবেদনঃ পুকুর থেকে উদ্ধার হল এক বছর ষাটেকের বৃদ্ধের দেহ।মঙ্গলবার সকাল বেলায় পূর্ব মেদিনীপুরের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.